সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় ২০ হাজার পরিবারকে ত্রাণ দেবে বাংলালিংক

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৪৪ পিএম, ০৭ জুলাই ২০২১

চলমান করোনা পরিস্থিতি, আর্থিক সঙ্কট ও প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত ২০ হাজার পরিবারকে ত্রাণ দেবে বাংলালিংক। সেনা কল্যাণ সংস্থা ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এই ত্রাণ বিতরণ করা হবে।

বুধবার (৭ জুলাই) রাজধানীতে সেনা কল্যাণ সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে বাংলালিংকের চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান ও সেনা কল্যাণ সংস্থার চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে একটি চুক্তিতে সই করেন।

এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলালিংকের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার এরিক অস, চিফ এথিকস অ্যান্ড কমপ্ল্যায়ান্স অফিসার মুনিরুজ্জামান শেখ ও অ্যাকটিং চিফ টেকনোলজি অফিসার হাসনাত রেজা মাহবুব আলম।

ত্রাণ কার্যক্রমটির প্রথম ধাপ চলতি মাসে ও দ্বিতীয় ধাপ আগামী সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসে পরিচালিত হবে। প্রতিটি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে চাল, ডাল, তেল, সুজি, চিনি, লবণ, বার সাবান এবং খাবার স্যালাইন দেয়া হবে বাংলালিংকের পক্ষ থেকে।

সেনা কল্যাণ সংস্থার চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম বলেন, আমরা বাংলালিংকের ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচিতে আবারও অংশীদার হতে পেরে আনন্দিত। বাংলালিংক যেভাবে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সহায়তার জন্য সবসময় এগিয়ে আসে তা সত্যই প্রশংসনীয়। সেনা কল্যাণ সংস্থা তাদের এই উদ্যোগকে এগিয়ে নেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় সহায়তা দেবে।

ত্রাণ হস্তান্তর অনুষ্ঠানে সেনা কল্যাণ সংস্থার চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম জানান, সেনা কল্যাণের সকল কর্মকর্তার পক্ষ থেকে বাংলালিংককে আমরা ধন্যবাদ জানাই। আপনারা মানবতার সেবায় আগেও এগিয়ে এসেছিলেন, এখনও আসছেন এবং আগামীতেও এ সহযোগিতা অব্যাহত রাখবেন। দেশের ক্রান্তিলগ্নে দেশের মানুষ যখন অসহায়, যখন মানুষ ঠিকমতো খাবার পাচ্ছে না, প্রয়োজনীয় জিনিস পাচ্ছে না সেসব মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসার জন্য আপনারা যে উদ্যোগ নিয়েছেন সেটি প্রশংসার দাবিদার।

তিনি বলেন, মানবিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আপনারা (বাংলালিংক) মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছেন সেনা কল্যাণ সংস্থা তথা সশস্ত্র বাহিনীকে। সেনাবাহিনীর সর্বাধিক তত্ত্বাবধানে কার্যক্রমকে নির্ভরযোগ্য এবং আস্থার প্রতীক হিসেবে বেছে নেয়ায় সেনাপ্রধান এবং সশস্ত্র বাহিনীর সকল সদস্যের পক্ষ থেকে আপনাদের ধন্যবাদ। আশা করি মানবতার জন্য, মানুষের জন্য এবং দেশের জন্য বাংলালিংকের সাথে যে পদক্ষেপ আমরা গ্রহণ করছি সেটি আরও বেগবান হবে। এবং যুক্তভাবে আমরা যেন মানুষের কল্যাণে এবং মানুষের সহায়তায় এগিয়ে যেতে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আমরা আরও অধিক গতিতে যেন মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারি সে জন্য সেনা কল্যাণ বাংলালিংকের পাশে থাকবে।

বাংলালিংকের চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান বলেন, মহামারি, আর্থিক সঙ্কট ও বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কাছে পৌঁছানোর জন্য আমরা সেনা কল্যাণ সংস্থার সঙ্গে এই চুক্তি করেছি। একটি সামাজিকভাবে দায়বদ্ধ কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান হিসাবে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত মানুষেরপাশে থেকে তাদেরকে এই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করতে চাই। এই উদ্যোগে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও সেনা কল্যাণ সংস্থাকে সহযোগী হিসেবে পেয়ে আমরা খুবই আনন্দিত।

 

সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে ভবিষ্যতেও ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে থাকতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ বাংলালিংক।

এইচএস/এসএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]