অলিগলি থেকে রাজপথ সর্বত্র ভাসমান ছাগলের হাট

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:১১ পিএম, ২০ জুলাই ২০২১

পবিত্র ঈদুল আজহা কড়া নাড়ছে দরজায়। রাত পোহালেই বুধবার (২১ জুলাই) সারাদেশে উৎসবমুখর পরিবেশে ঈদুল আজহা পালিত হবে।

মুসলিম সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব উদযাপন উপলক্ষে রাজধানীতে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বৈধ ইজারাপ্রাপ্ত হাটে ১৭ জুলাই থেকে গরু-ছাগলসহ বিভিন্ন গবাদি পশু বিক্রি শুরু হয়। গত চার দিনে বিভিন্ন হাট ঘুরে ঘুরে কোরবানির জন্য পছন্দের পশুটি কিনেছেন ক্রেতারা। এখনো কিনছেন অনেকে।

আর ঈদ ঘনিয়ে আসায় আজ রাজধানীর বিভিন্ন পাড়া-মহল্লার অলিগলি থেকে রাজপথ সর্বত্রই ছাগলের ভাসমান হাট বসেছে।

Goat_Market-1.jpg

সরেজমিন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, ছোট-বড় বিভিন্ন আকারের ছাগল ও খাসি নিয়ে রাস্তার মোড়ে মোড়ে বিক্রেতারা দাঁড়িয়ে আছেন। বিভিন্ন বয়সের ক্রেতারা ঘুরে ঘুরে দরদাম করে পছন্দের ছাগল কিংবা খাসি কিনছেন। ছাগলভেদে দাম সর্বনিম্ন সাত/আট হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৩০/৩৫ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

দুই সিটি মেয়র বৈধ হাট ছাড়া যেখানে সেখানে হাট বসিয়ে পশু বিক্রি করা যাবে না বলে নির্দেশনা দিলেও বিভিন্ন এলাকায় ভাসমান এ হাটগুলো বসেছে। এসব হাট থেকে হাসিলও আদায় করতে দেখা গেছে।

Goat_Market-1.jpg

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর লালবাগের পলাশীবাজার মোড়ে দেখা গেছে, রাস্তার বিভিন্ন দিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে বিপুল সংখ্যক ছাগল নিয়ে ছোটখাট হাট বসেছে। রাস্তার অনেকটা অংশ নিয়ে কেনাকাটা জমে ওঠায় এক পর্যায়ে যানজট তৈরি হয়। এ সময় ট্রাফিক পুলিশকে বাঁশি বাজিয়ে ছাগল বিক্রেতাদের সরে যেতে বলা হয়। কিন্তু কে শোনে কার কথা। অদূরে পুলিশের একটি পেট্রোল গাড়ি দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেলেও রাস্তা জুড়ে বসা হাট সরিয়ে নিতে তাদের কিছু বলতে শোনা যায়নি।

লালবাগের খাজা দেওয়ান এলাকার বাসিন্দা মহব্বত আলী ছোট্ট নাতনিকে সঙ্গে নিয়ে ছাগল কিনতে আসেন। এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি জানালেন, হাট থেকে দেড় লাখ টাকায় গরু কিনলেও নাতনির আবদার মেটাতে এক জোড়া ছাগল কিনতে এসেছেন। কিছুক্ষণ পর তাকে ৩৪ হাজার টাকায় দুটি ছাগল কিনে নিতে দেখা যায়।

Goat_Market-1.jpg

ভাসমান এ ছাগলের হাটে কার ছাগল ভালো তা নিয়ে বিক্রেতাদের মধ্যে মাঝে মধ্যেই বাদানুবাদ করতে দেখা যায়। সবাই নিজেকে প্রকৃত ছাগল ব্যবসায়ী দাবি করলেও বিভিন্ন সূত্রে জানা যায় তাদের বেশিরভাগই মৌসুমি ব্যবসায়ী।

এমইউ/এমআরআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]