পশুর হাটের বর্জ্য অপসারণে কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৩৪ পিএম, ২৩ জুলাই ২০২১

দ্রুততর সময়ে কোরবানি করা পশুর বর্জ্য অপসারণে সিটি করপোরেশন সাফল্য দেখালেও হাটের বর্জ্য অপসারণে উদাসীন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। রাজধানীর হাটগুলোতে এখনও পড়ে আছে পশুর বর্জ্য। সিটি করপোরেশন বলছে, বর্জ্য পরিষ্কারের দায়িত্ব ইজারাদারদের। দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হলে তাদের বিরুদ্ধে নেয়া হবে ব্যবস্থা।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) রাজধানীর গাবতলী অস্থায়ী পশুর হাটের বর্ধিতাংশে দেখা যায়, ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে বর্জ্য। কোথাও কাদাপানিতে পশুর চামড়াও পড়ে থাকতে দেখা গেছে। পশুর বর্জ্যের ফেলে রাখা স্তূপ থেকে ছড়াচ্ছে উৎকট দুর্গন্ধ। এছাড়া মাঠ ও সড়কের এখানে-সেখানে পড়ে আছে মাস্ক।

স্থানীয় বাসিন্দা ও পথচারীরা বলেছেন, আবর্জনার দুর্গন্ধে চলাফেরা করা মুশকিল হয়ে পড়েছে। প্রতি বছর হাট সরে যাওয়ার পরে দায়সারাভাবে পরিষ্কার করায় সড়কে আবর্জনা থাকে দীর্ঘদিন। আর পরিবেশবিদরা জানিয়েছেন, দ্রুত পরিষ্কার না হলে তা জনস্বাস্থ্যের জন্য ভয়াবহ দুর্যোগ বয়ে আনবে।

jagonews24

হাটের বাইরে আবর্জনা পরিষ্কারের বিষয়ে গাবতলীর ইজারাদারদের সঙ্গে যোগাযোগ করে জাগো নিউজ। ভেতরে স্থাপিত ইজারাদার ঘরে গিয়ে বক্তব্য নিতে গেলে সেখান থেকে পেছনের একটি ভবনে যোগাযোগ করতে বলা হয় প্রতিবেদককে।

সেখানে গেলে নিজেকে গাবতলী হাটের পরিচালক দেয়া সানোয়ার হোসেন বলেন, ‘হাট পরিষ্কারের দায়িত্ব সিটি করপোরেশনের। পরিষ্কারের টাকা অগ্রিম দেয়া আছে। ঈদের পরের দিন করার কথা হলেও এখনও তারা পরিষ্কার করেনি। প্রতি বছরই ঈদের দিন করে, এ বছর করেনি।’

jagonews24

তবে হাটের পরিষ্কারের দায়িত্ব সিটি করপোরেশনের নয় বলে জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমোডোর এম সাইদুর রহমান।

জাগো নিউজকে তিনি বলেন, ‘হাটগুলো থেকে বর্জ্য সরানোর কথা ইজারাদারদের। টার্মস এবং কন্ডিশনে এটা বলা আছে। ঈদের পরের দিনের মধ্যে সরানোর কথা। তা না হলে তাদের জামানতের টাকা থেকে বাজেয়াপ্ত করা হবে।’

jagonews24

এ বিষয়ে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) সাধারণ সম্পাদক শরীফ জামিল জাগো নিউজকে বলেন, ‘এইগুলা তো ঠিকমতো পরিষ্কার করতেই হবে। তা না হলে পরিবেশের বিপর্যয় ঘটবে। এটা অপসারণ না করলে নগরী বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়বে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ইজারাদারদের কন্ডিশনে পরিষ্কারের কথা বলে আছে। তারা যদি না করে তাহলে সরকারের দায়িত্ব এটা পরিষ্কার করা।’

এসএম/এসএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]