লকডাউনে প্রতিদিন ১০০০ জনকে খাবার দেবে চট্টগ্রাম প্রশাসন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৮ পিএম, ২৯ জুলাই ২০২১

দেশব্যাপী চলমান কঠোর লকডাউনে (বিধিনিষেধ) চট্টগ্রাম নগরের এক হাজার পথচারী ও অসহায় মানুষের দুপুরের খাবার বিতরণ শুরু করেছেন জেলা প্রশাসনের কার্যালয়।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) নগরের পতেঙ্গা, ইপিজেড, বাকলিয়া, আকবরশাহ, আগ্রাবাদসহ বিভিন্ন এলাকায় দুপুরে এসব খাবার বিতরণ করা হয়।

জেলা প্রশাসন জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রাম সদর সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাসুমা জান্নাত, আগ্রাবাদ সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোজাম্মেল হক, পতেঙ্গা সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) জিসান বিন মাজেদ এবং তিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এহসান মুরাদ, আশরাফুল আলম ও প্লাবন কুমার বিশ্বাসসহ মোট ছয়জনের নেতৃত্বে এসব খাবার বিতরণ করা হয়।

জেলা প্রশাসনের দেয়া খাবারের প্যাকেটে মুরগির মাংস ও একটি করে ডিম দেয়া হয়। খাবার বিতরণের দায়িত্বে থাকা চট্টগ্রাম সদর সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাসুমা জান্নাত জাগো নিউজকে বলেন, ‘জেলা প্রশাসক নির্দেশনায় নগরের অসহায়, পথচারী এবং পাহাড় ধসের শঙ্কায় যারা বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে আছেন তাদেরসহ এক হাজার জনের মাঝে দুপুরের খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

jagonews24

লকডাউন চলাকালীন এভাবে প্রতিদিন এক হাজার জনকে দুপুরের খাবার বিতরণ করা হবে। জানা গেছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে সরকারি নির্দেশনায় পবিত্র ঈদুল আজহার পর গত শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল থেকে ফের ১৪ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। এ বিধিনিষেধ চলবে আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত।

বিধিনিষেধ ঘোষণার পর সরকারি প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, এবারের বিধিনিষেধ চলাকালে পোশাক কারখানাসহ সব ধরনের শিল্পকারখানা ও সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। জরুরি সেবা, গণমাধ্যম ও খাদ্য উৎপাদনে সংশ্লিষ্ট পরিবহন ছাড়া সব ধরনের গণপরিবহনও বন্ধ থাকবে।

বিশেষ করে বাস, ট্রেন, লঞ্চ ও অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট (বিদেশগামী যাত্রী পরিবহনের জন্য শর্তসাপেক্ষে তিনটি এয়ারলাইন্স ছাড়া) বন্ধ থাকবে। রাজধানী ঢাকা থাকবে বিচ্ছিন্ন। জিরো টলারেন্সে থাকবে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এমএসএম/এমআরএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]