এক পশলা বৃষ্টিতে রাজধানীতে জলাবদ্ধতা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:১৭ এএম, ০৪ আগস্ট ২০২১

বুধবার ভোর রাতে এক পশলা (১২ মিলিমিটার) বৃষ্টিতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। কোথাও সড়ক তলিয়ে গেছে, কোথাও ঘরবাড়িতে ঢুকেছে পানি। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন মানুষ।

সকাল থেকে মাতুয়াইলের বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা গেছে, সড়ক পানিতে তলিয়ে গেছে, কোথাও কোথাও হাঁটু সমান পানি। কোথাও বাড়িতে পানি ঢুকে গেছে।

jagonews24

ডেমরা সড়কের মাদরাসা বাজার থেকে মাতুয়াইল কবরস্থান পর্যন্ত এক কিলোমিটারের মতো সড়কের প্রায় পুরোটা পানিতে তলিয়ে গেছে। এখানে কোনো ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় পয়োবর্জ্য চারপাশে ছড়িয়ে পড়েছে। মানুষ বাধ্য হয়ে এই পানি মাড়িয়ে চলাচল করছেন।

কবরস্থান মসজিদের সামনের পূর্বদিকের সড়কটিতে হাঁটু পানি জমে গেছে। ব্যাটারিচালিত রিকশার মোটর ডুবে যাচ্ছিল। মসজিদের সামনে থেকে ইনুপট্টির দিকের পাম্পে যাওয়ার রাস্তাটিও পানির নিচে তলিয়ে আছে।

করস্থানের পশ্চিম পাশে চাঁনবানু মসজিদের সামনের সড়কটিও জলাবদ্ধ অবস্থায় রয়েছে। উত্তর রায়েরবাগেরও একটি সড়ক পানির নিচে ডুবে আছে। সেখানে কয়েকটি বাড়ির নিচতলা এবং টিনশেড বাড়িতে পানি ঢুকেছে।

jagonews24

তবে খুব বেশি বৃষ্টি হয়েছে এমনও নয়। আবহাওয়াবিদ মো. আব্দুল হামিদ জানান, গতরাত ১২টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত ঢাকায় ১২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

মাতুয়াইল মাদরাসা বাজারের বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বৃষ্টি হলেই এই রাস্তাটা পানিতে ডুবে যায়। তখন মানুষের মলসহ ড্রেনের সব ময়লা রাস্তায় চলে আসে। এগুলো মাড়িয়েই চলতে হয়। দূরে কোথাও গেলে না হয় রিকশা নিয়ে পার হলাম। কিন্তু জরুরি প্রয়োজনে দোকানে যেতে হলে কী রিকশা নেয়া যায় বলেন?’

অটোরিকশা চালক শাহীন মিয়া কবরস্থানের উত্তর-পূর্ব কোনায় উঁচু রাস্তার মাথায় দাঁড়িয়ে বলেন, ‘কোনো রহমে মটর বাঁচাইয়া এইটুক পার হইছি। আর ওইদিকে আর জামু না।’

jagonews24

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় ৬৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. সামসুদ্দিন ভূঁইয়া (সেন্টু) জাগো নিউজকে বলেন, ‘ওয়ার্ডে বিভিন্ন ধরনের উন্নয়ন কাজ চলছে। মাদরাসা বাজার থেকে হাশেম রোড পর্যন্ত সড়কটি উন্নয়নের জন্য সিটি করপোরেশনে স্কিম দেয়া আছে। আশা করি শিগগিরই তা অনুমোদন হবে এবং আমরা কাজ শুরু করতে পারব।’

আরএমএম/এএএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]