পুলিশ পরিচয়ে মাইক্রোবাস ছিনতাই, ৯৯৯-এ কল পেয়ে ২ ঘণ্টায় উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:১৪ পিএম, ১২ আগস্ট ২০২১

জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে কল পেয়ে পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইকৃত মাইক্রোবাস দুই ঘণ্টার মধ্যে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় চার ছিনতাইকারীকে আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, মিজানুর রহমান (৪০), কামরুজ্জামান (৩৫), দেলোয়ার (৪২) ও জাহাঙ্গীর (৩৮)।

বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) বিকেলে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এর পরিদর্শক আনোয়ার সাত্তার এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে আটটায় যশোরের বাঘারপাড়া থানাধীন বাঘারপাড়া বাজার থেকে একজন ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে জানান, তার ঢাকা মেট্রো চ-১৯-৬৯৯৪ নম্বরের একটি কালো রঙের এক্স নোয়াহ গাড়ি কিছুক্ষণ আগে ছিনতাই হয়েছে। তিনি মাইক্রোবাস যোগে ঢাকা থেকে সাতক্ষীরা যাওয়ার পথে খুলনার জিরো পয়েন্ট এলাকায় অন্য একটি মাইক্রোবাস তাদের গাড়িটির গতিরোধ করে। গতিরোধকারী মাইক্রোবাস থেকে ৭-৮ জন ব্যক্তি নিজেদের পুলিশ বলে পরিচয় দেয় এবং তাকে মারধর করে ড্রাইভারসহ গাড়ি থেকে নামিয়ে দেয়।

ওই ব্যক্তি আরও জানান, এরপর তার মোবাইল ফোন ও টাকা পয়সা ছিনিয়ে নেয় এবং তাদের মাইক্রোবাস নিয়ে চলে যায়। পরে তিনি একটি অটোরিকশাযোগে গাড়িটি অনুসরণ করে যশোরে চলে যান। এরপর তিনি এক পথচারীর মোবাইল ফোন থেকে ৯৯৯ নম্বর ফোন করেন।

৯৯৯-এর পরিদর্শক আনোয়ার সাত্তার বলেন, ‘তাৎক্ষণিক বিষয়টি যশোর জেলা পুলিশের নিয়ন্ত্রণ কক্ষে জানিয়ে ছিনতাইকৃত গাড়িটি আটকের ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনুরোধ জানানো হয়। ৯৯৯ থেকে সংবাদ পেয়ে সড়ক-মহাসড়কে যশোর জেলার থানা পুলিশের টহল টিম ও চেকপোস্টগুলো তৎপরতা চালাতে থাকে।’

তিনি জানান, ‘সকাল সাড়ে ১০টায় বাঘারপাড়া থানা পুলিশের একটি পুলিশ দল শোভদেব নগর এলাকা থেকে মাত্র দুই ঘণ্টার মধ্যে মাইক্রোবাসটি উদ্ধার করে। এ সময় চার ছিনতাইকারীকে আটক করে পুলিশ।’

বাঘারপাড়া থানার পুলিশ টিমের উপ-পরিদর্শক (এসআই) নবুওয়াত ৯৯৯-কে ফোনে জানান, আটক ছিনতাইকারীদের থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। বাকি অপরাধীদের আটকের চেষ্টা চলছে। এছাড়াও পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন এবং গাড়িটি আইনি প্রক্রিয়ায় মালিককে হস্তান্তর করা হবে।

টিটি/এএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]