৯৯৯-এ ফোনে ডুবন্ত নৌকা থেকে পাঁচ শ্রমিককে জীবিত উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:০৯ পিএম, ২৯ আগস্ট ২০২১

মেঘনা নদীতে ডুবন্ত একটি বালি বোঝাই নৌকা (বাল্কহেড) থেকে এক শ্রমিক জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করেন। এরপর তার দেওয়া তথ্যমতে সেই নৌকা থেকে জীবিত পাঁচ শ্রমিককে উদ্ধার করেছে নৌপুলিশ।

রোববার (২৯ আগস্ট) বিকেলে এ তথ্য জানান ৯৯৯-এর পরিদর্শক আনোয়ার সাত্তার।

তিনি বলেন, আজ দুপুর দেড়টার দিকে ভয়ার্ত ও উদ্বিগ্ন স্বরে ৯৯৯-এ কল করেন মেহেদী নামে একজন নৌশ্রমিক। তিনি জানান- তারা বালুবোঝাই একটি নৌকা করে লক্ষ্ণীপুরের মজু চৌধুরী ঘাট থেকে নোয়াখালীর কমলগঞ্জ যাচ্ছিলেন। কিছুদূর যাওয়ার পর তীব্র স্রোত ও ঢেউয়ের তোড়ে তাদের নৌকাটি একপাশে কাত হয়ে যায় এবং যেকোনো মুহূর্তে নৌকাটি ডুবে যেতে পারে। নৌকাটিতে তিনিসহ মোট পাঁচজন শ্রমিক ছিলেন। তিনি বারবার তাদের বাঁচানোর জন্য অনুরোধ জানাচ্ছিলেন।

jagonews24

এরপর ৯৯৯ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি নৌপুলিশ নিয়ন্ত্রণ কক্ষ, লক্ষ্ণীপুর জেলা পুলিশ নিয়ন্ত্রণ কক্ষ ও কোস্টগার্ড নিয়ন্ত্রণ কক্ষে জানিয়ে উদ্ধারের ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়। ৯৯৯ ডিসপাচার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) নাহিদা সুলতানা ও ৯৯৯ ডিউটি টিম সুপারভাইজার ইন্সপেক্টর নাসিমুল হক বিষয়টি নৌপুলিশ ও কলারের সঙ্গে যোগাযোগ করে উদ্ধার তৎপরতার আপডেট নিতে শুরু করেন।

৯৯৯ থেকে খবর পেয়ে লক্ষ্ণীপুরের মজু চোধুরী ঘাট নৌপুলিশ ফাঁড়ির একটি উদ্ধারকারী দল দ্রুত ঘটনাস্থলে রওয়ানা দেয়। পরে উদ্ধারকারী পুলিশ দলের এএসআই মো. আরিফ হোসেন ৯৯৯-কে জানান, তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে ডুবন্ত নৌকার শ্রমিকদের উদ্ধার করে তাদের নৌযানে নেন। তাদের খাবার ও পানীয় সরবরাহ করা হয় ও নিরাপদে তীরে নিয়ে আসা হয়। এছাড়া ডুবন্ত নৌকাটির মালিকপক্ষকে খবর দেয়া হয়েছে, তারা বড় নৌযান নিয়ে এলে ডুবন্ত নৌকাটিকে উদ্ধারের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

টিটি/এমআরআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]