ইভ্যালির চেয়ারম্যান-এমডির মুক্তি চেয়ে গণস্বাক্ষর

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:২৪ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

অর্থ আত্মসাতের মামলায় গ্রেফতার হয়ে রিমান্ডে থাকা ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ রাসেল ও তার স্ত্রী (ইভ্যালির চেয়ারম্যান) শামীমা নাসরিনের মুক্তির দাবিতে গণস্বাক্ষর নেওয়া শুরু করেছেন ইভ্যালির ক্রেতা-বিক্রেতারা।

একই সঙ্গে ওই দুজনের মুক্তি দাবিতে ইভ্যালির প্রধান কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ হয়েছে।

এ সময় তারা জানান, গণস্বাক্ষর গ্রহণের পর তা স্মারকলিপি আকারে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে পাঠানো হবে।

jagonews24

রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ধানমন্ডির সোবহানবাগের ১৪ নম্বর সড়কে ইভ্যালির প্রধান কার্যালয়ের সামনে এসব কর্মসূচি পালিত হয়।

এ সময় তারা ‘ই-কমার্সের ভবিষ্যৎ নষ্ট হতে দেবো না’, ‘রাসেল ভাইয়ের মুক্তি দিন, উদ্যোক্তাদের বাঁচতে দিন’, ‘সেভ ইভ্যালি, সেভ ই-কমার্স’ স্লোগান দেন।

বিক্ষোভকারীরা বলেন, ইভ্যালির চেয়ারম্যান-এমডিকে জেলখানায় আটকে রাখলে সবাই ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। বরং তাকে যে ছয় মাসের সময় দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল, সে সময় দিলে তিনি ব্যবসায় ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন।

তারা আরও বলেন, আমাদের টাকা কেউ ফিরিয়ে দিতে পারলে রাসেল ভাই পারবেন। তিনি জেলে থাকলে কেউ এ দায়িত্ব নেবে না।

jagonews24

এর আগে ১৬ সেপ্টেম্বর বিকেলে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে ইভ্যালি এমডি রাসেলের বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। অভিযান শেষে বিকেল ৫টা ২০ মিনিটে এ দম্পতিকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর র‌্যাবের সাদা গাড়িতে করে তাদের নেওয়া হয় র‌্যাব সদর দপ্তরে, সেখানেই চলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ।

১৫ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা ২০ মিনিটের দিকে আরিফ বাকের নামে ইভ্যালির এক গ্রাহক প্রতিষ্ঠানটির এমডি ও সিইও রাসেল এবং তার স্ত্রী প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে গুলশান থানায় মামলা করেন।

ওই মামলায় তাদের তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। বর্তমানে তারা রিমান্ডে রয়েছেন।

এমইউ/এমএইচআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]