‘হরিজন জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে শিক্ষার বিকল্প নেই’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪২ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

বিভিন্নভাবে বৈষম্যের স্বীকার হরিজন জনগোষ্ঠীর শিক্ষার্থীরা। তাই হরিজন জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই।

‘হরিজন জনগোষ্ঠীর ছাত্র-ছাত্রীদের জীবনমান উন্নয়নে আমাদের করণীয়’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন বক্তারা।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে এ সভার আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ হরিজন ঐক্য পরিষদের সভাপতি কৃষ্ণলাল বলেন, আমাদের বিভিন্নভাবে টিজ করা হয়। তাই শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। নিজেদের অধিকার ছিনিয়ে আনতে হবে শিক্ষা অর্জনের মাধ্যমে। আমাদের ভেতরে ঐক্য দরকার। বিভেদ তৈরি হলে আমাদের যে বিকাশ দরকার তা আসবে না।

নিজেদের সহযোগিতা করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের নিজেদের একে অন্যের পাশে দাঁড়াতে হবে। আমাদের সংখ্যা বেড়েছে। তাই আমরা কোথায় ছিলাম এখন কোথায় আছি তা জানা দরকার। ফলে আগামী শুমারি হলে সেখানে আমাদের যেন পুরো তথ্য উঠে আসে তার জন্য শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা করতে হবে।

মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস।

এসময় তিনি বলেন, ধর্মের মধ্যে কোনো বিভেদ নেই। প্রতিটি মানুষ সমান। এগুলো মানুষের তৈরি, যা বিভেদ আছে এটার একটাও আমি মানি না।

তিনি বলেন, বর্ণপ্রথা, জাত পাত, ধর্মে ও রাষ্ট্রের নামে নানা বিভেদ তৈরি করেছে। এটা আমাদের তৈরি।

হরিজন জনগোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে অধ্যাপক রোবায়েত বলেন, চাইলে সবকিছু করা সম্ভব। মনে জোর রাখতে হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, যে মার্কিনীরা কালোদের দেখতে পারত না তিনি (ওবামা) কালো মানুষ হয়ে দুইবার মার্কিনীদের রাষ্ট্রপতি হয়েছেন। তাই কোনো জাত দেখা দরকার নেই।

লোকনাট্য গোষ্ঠীর সাধারণ সম্পাদক ও মঞ্চ, টিভি অভিনেতা লায়ন তাপস সরকার (গৌর) জাতিগত আন্দোলনের জন্য ন্যায়ের পথে কাজ করার আহ্বান জানান।

সভায় শুরুতে ধারণাপত্র পাঠ করেন বাংলাদেশ হরিজন ছাত্র ঐক্য পরিষদের সাবেক সভাপতি রোনিত লাল।

সংগঠনটির সাংগঠনিক সম্পাদক পান্নালাল বাশফোর পরিচালনায় মতবিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ হরিজন ঐক্য পরিষদের মহাসচিব নির্মল চন্দ্র দাস, শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক সজল কুমার রায়সহ বেশকিছু শিক্ষার্থী।

আরএসএম/জেডএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]