শ্রম আইনে গৃহভিত্তিক শ্রমিকদের স্বীকৃতি-মর্যাদা দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৯ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০২১

দেশের শ্রম আইনে গৃহভিত্তিক শ্রমিকদের শ্রমিক হিসেবে স্বীকৃতি ও মর্যাদা দেওয়াসহ আট দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে হোম-বেইজড ওয়ার্কার্স রাইটস নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ।

আন্তর্জাতিক গৃহভিত্তিক শ্রমিক দিবস উপলক্ষে বুধবার (২০ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। এতে গৃহভিত্তিক শ্রমিকদের অধিকার নিয়ে কাজ করা ১৪টি সংগঠনসহ গৃহভিত্তিক শ্রমিকরা অংশ নেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, গৃহভিত্তিক যেসব শ্রমিকরা রয়েছে তারা শ্রম আইনে শ্রমিকদের যে অধিকার রয়েছে তা পায় না। শুধু তাই নয়, এসব শ্রমিকরা নানা বৈষম্যের শিকার। নিজেদের যেমন মর্যাদা নেই, কাজেরও মর্যাদা নেই। অথচ দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে তাদেরও অবদান রয়েছে। তাই তাদের কাজের স্বীকৃতি দেওয়া উচিত। তাদের মর্যাদা ও অধিকার নিশ্চিত করা উচিত।

মানববন্ধনে নেটওয়ার্কের সদস্য সংগঠন ওশি ফাউন্ডেশনের প্রকল্প সমন্বয়কারী আসাদ উদ্দিন জাগো নিউজকে বলেন, গৃহভিত্তিক শ্রমিকরা শ্রমিক হিসেবে স্বীকৃত নয়। ফলে শ্রমিক অধিকার নেই তাদের। তাদের শ্রমিক অধিকার নিশ্চিত করা দরকার। এতে তাদের সামাজিক সুরক্ষাসহ সব অধিকার নিশ্চিত হবে। আমরা চাই, সরকার দ্রুত আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) ১৭৭ কনভেনশন অনুসমর্থন করবে।

ওশি ফাউন্ডেশনের পরিচালক মো. আলম হোসেন বলেন, গৃহভিত্তিক শ্রমিকদের কাজ অদৃশ্য রয়েছে। কোনো স্বীকৃতি নেই। করোনায় তারা কাজ হারিয়ে নানা সমস্যায় পড়েছে। তার সামাজিক সুরক্ষা নিশ্চিত করতে শ্রমিক হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া দরকার।

মানববন্ধন থেকে গৃহভিত্তিক শ্রমিকদের ন্যায্য মজুরি ও শোভন কর্ম পরিবেশ নিশ্চিতকরণ, অবিলম্বে আইএলও কনভেনশন ১৭৭ এর প্রতি অনুসমর্থন, গৃহভিত্তিক শ্রমিকদের পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, কর্মক্ষেত্রে সবধরনের বৈষম্য, হয়রানিসহ যৌন নির্যাতনের অবসান ঘটানো, গৃহভিত্তিক শ্রমিকদের সামাজিক সুরক্ষার আওতায় আনা, শ্রমিকদের স্বাস্থ্য বীমার আওতায় নিয়ে আসা ও জলবায়ু পরিবর্তনজনিত বিরূপ প্রভাব থেকে তাদের সুরক্ষা দেওয়ার দাবি জানানো হয়।

আরএসএম/এমএএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]