মুগদা হাসপাতালে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে কর্মীদের বেতন আত্মসাতের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:০২ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০২১

মুগদা জেনারেল হাসপাতালের এক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মালিকের বিরুদ্ধে হাসপাতালটির ১৩৯ জন আউটসোর্সিং কর্মীর ১৫ মাসের বেতন আত্মসাৎ এবং নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।

এ নিয়ে আজ (বৃহস্পতিবার) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে চাকরিচ্যুত আউটসোর্সিং কর্মীদের পক্ষে মানবন্ধন করেছেন নুরুন নাহার নামে এক নারী। এ সময় কয়েকজন নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে চিত্রা এন্টারপ্রাইজ ও মেসার্স অনলাইন ট্রেডার্স নামে দুটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মালিক গোলাম কিবরিয়া খান রাজার বিরুদ্ধে কর্মীদের বেতনের ৩ কোটি ৬৭ লাখ ১৬ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করা হয়।

মানববন্ধনে নুরুন নাহার বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য আমাদের বেকারত্ব দূর করতে মুগদা হাসপাতালে আউটসোর্সিংয়ে চাকরি দেন। কিন্তু ঠিকাদার গোলাম কিবরিয়া খান রাজা দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই আমাদের বেতন নিয়ে গড়িমসি করে আসছেন। ১৫ মাস ধরে আমাদের বেতন দিচ্ছে না। বিনা বেতনে অনেককে চাকরিচ্যুত করছে।

তিনি জাগো নিউজকে বলেন, রাজনৈতিক কারণে কর্মস্থলে গিয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে শারীরিক নির্যাতনও চালানো হয়েছে। এ বিষয়ে স্থানীয় থানায় মামলা দিতে গেলেও মামলা নেয়নি। দুমাস আগে কোর্টে গিয়ে মামলা করেছি।

চাকরিচ্যুত এক পরিচ্ছন্নতাকর্মী মো. হেলাল বলেন, করোনার সময় মুগদা হাসপাতালে পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে কাজে নিলেও ৪ মাসের বেতন বকেয়া রেখেই চাকরি থেকে বের করে দেওয়া হয়। এখন পর্যন্ত বেতন পাইনি।

আরএসএম/এমএইচআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]