বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ৩৬ লাখ টাকা-শুকনা খাবার বরাদ্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:০৪ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০২১

তিস্তা নদীর পানি বেড়ে উত্তরাঞ্চলে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য মানবিক সহায়তা দিতে ৩৬ লাখ নগদ টাকা এবং শুকনা ও অন্যান্য খাবারের ৪ হাজার প্যাকেট বরাদ্দ দিয়েছে সরকার।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) এ বরাদ্দ দেওয়া হয়। মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত রংপুর, নীলফামারী, কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাট- এই চারটি জেলার প্রতিটির জন্য নগদ ৫ লাখ করে ২০ লাখ টাকা, গরুর খাদ্য কেনার জন্য ২ লাখ করে ৮ লাখ টাকা, শিশুখাদ্য কেনার জন্য ২ লাখ করে ৮ লাখ টাকাসহ মোট ৩৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রতিটি জেলার জন্য এক হাজার করে মোট চার হাজার শুকনো ও অন্যান্য খাবারের প্যাকেট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

প্রতিটি প্যাকেটে ১০ কেজি মিনিকেট চাল, ১ কেজি দেশি মসুরের ডাল, ১ কেজি আয়োডিনযুক্ত লবণ, ১ লিটার সয়াবিন তেল, ১ কেজি চিনি, ১০০ গ্রাম মরিচের গুঁড়া, ২০০ গ্রাম হলুদের গুঁড়া এবং ১০০ গ্রাম ধনিয়া গুঁড়াসহ মোট আটটি পণ্য রয়েছে। প্রতিটি প্যাকেট খাবারে চার সদস্যের পরিবারের প্রায় এক সপ্তাহ চলে যাবে বলে জানিয়েছে ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

বরাদ্দ দেওয়া অর্থ, শুকনা এবং অন্যান্য খাবার সংশ্লিষ্ট সংসদ সদস্যদের সঙ্গে পরামর্শ করে বন্যা ও নদীভাঙনে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে বিতরণ করার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া গোখাদ্য হিসেবে বিভিন্ন প্রকার ভুষি, খৈল, চালের কুড়া, চিটাগুড়, খড়, মানসম্মত রেডিমেড ফুড ইত্যাদি এবং শিশু খাদ্য হিসেবে বিভিন্ন প্রকার খেজুর, বিস্কুট, ফর্টিফাইড তেল, ব্রাউন চিনি, মসুর ডাল, সাগু, ফার্টিফাইড চাল, ওয়াটার পিউরিফাইং ট্যাবলেট, বাদাম, মানসম্মত রেডিমেড ফুড ইত্যাদি খাদ্যদ্রব্য স্থানীয়ভাবে কিনে বিতরণ করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

আরএমএম/এমএইচআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]