মিতু হত্যা: যশোর থেকে গ্রেফতার আসামি ভোলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৩৬ পিএম, ২৩ অক্টোবর ২০২১
গ্রেফতার এহতেশামুল হক ওরফে ভোলা

চট্টগ্রামের চাঞ্চল্যকর মিতু হত্যাকাণ্ডে দায়ের হওয়া মামলার অন্যতম আসামি এহতেশামুল হক ওরফে ভোলাকে (৪১) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) দিবাগত রাতে যশোর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন চট্টগ্রাম মেট্রো ইউনিটের সুপার (এসপি) নাঈমা সোলতানা।

তিনি বলেন, গতকাল (শুক্রবার) গভীর রাতে ভোলাকে যশোর থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে আদালতে পাঠানো হচ্ছে।

এর আগে গত ১৪ অক্টোবর উচ্চ আদালতের দেওয়া অন্তর্বর্তীকালীন জামিন শেষে আত্মসমর্পণ না করায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমানের আদালত।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে চট্টগ্রাম নগরের নিজাম রোডে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তদের গুলি ও ছুরিকাঘাতে খুন হন মাহমুদা খানম মিতু। ওই সময় এ ঘটনা দেশজুড়ে ব্যাপক আলোচিত হয়। ঘটনার সময় মিতুর স্বামী পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার অবস্থান করছিলেন ঢাকায়। ঘটনার পর চট্টগ্রামে ফিরে বাবুল পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার প্রায় পাঁচ বছর শেষে গত ১২ মে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে পুলিশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) চট্টগ্রাম মেট্রোর পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা এ প্রতিবেদন দাখিল করেন।

এদিকে বাবুল আক্তারের দায়ের করা মামলায় স্ত্রী হত্যাকাণ্ডে তারই সম্পৃক্ততা পায় পিবিআই। গত ১২ মে আগের মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার দিন বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে চট্টগ্রাম নগরের পাঁচলাইশ থানায় মামলা দায়ের করেন মিতুর বাবা সাবেক পুলিশ পরিদর্শক মোশাররফ হোসেন।

বাবুল আক্তার ছাড়া ওই মামলার বাকি সাত আসামি হলেন- মো. কামরুল ইসলাম শিকদার ওরফে মুসা (৪০), এহতেশামুল হক ওরফে ভোলা (৪১), মো. মোতালেব মিয়া ওরফে ওয়াসিম (২৭), মো. আনোয়ার হোসেন (২৮), মো. খায়রুল ইসলাম ওরফে কালু (২৮), সাইদুল ইসলাম শিকদার (৪৫) ও শাহজাহান মিয়া (২৮)।

মিজানুর রহমান/এমআরআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]