কক্সবাজার থেকে প্রাইভেটকারে ইয়াবা এনে ঢাকায় বেচতেন তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৫২ পিএম, ২৫ অক্টোবর ২০২১

কক্সবাজারের সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে ইয়াবা সংগ্রহ করে প্রাইভেটকারে করে ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করতো একটি চক্র। মাদক বিক্রির টাকা প্রাইভেটকারের মালিক নিজের কাছে জমা করতেন। পরবর্তীতে প্রাইভেটকারের মালিক মাদক বিক্রির টাকা সবার মধ্যে বণ্টন করে দিতেন।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) গোয়েন্দা মতিঝিল বিভাগের অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও মাদক নিয়ন্ত্রণ টিমের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন এ তথ্য জানান।

এর আগে রাজধানীর মতিঝিল থানা এলাকা থেকে ইয়াবাসহ পাঁচ মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা মতিঝিল বিভাগ। গ্রেফতাররা হলেন- মামুনুর রশিদ, রাসেল ফেরদৌস রাকিব, মো. বেলাল, আব্দুল্লাহ আল মামুন ও দুলাল হোসেন।

রোববার (২৪ অক্টোবর) রাত থেকে ধারাবাহিক অভিযানে মতিঝিল ও গুলশান থানা এলাকা থেকে তদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, কিছু মাদক কারবারি প্রাইভেটকারযোগে ইয়াবা বিক্রির জন্যে মতিঝিল থানার পোস্ট অফিস এলাকায় অবস্থান করছেন বলে তথ্য পাওয়া যায়। এমন তথ্যের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে একটি প্রাইভেটকারসহ মামুন, রাসেল, বেলাল ও আব্দুল্লাহকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় প্রাইভেট কার তল্লাশি করে পাঁচ হাজার পিস ইয়াবা ট্যালেট জব্দ করা হয়। পরবর্তীতে গ্রেফতারদের দেওয়া তথ্যমতে রাত সাড়ে ৮টায় গুলশানের শাহজাদপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে এ ঘটনায় জড়িত প্রাইভেটকারের মালিক দুলাল হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি বলেন, গ্রেফতাররা কক্সবাজারের সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে ইয়াবা সংগ্রহ করে প্রাইভেটকারে করে ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করতেন। মাদক বিক্রির টাকা প্রাইভেটকারের মালিক দুলাল হোসেনের কাছে জমা থাকতো। পরবর্তীতে দুলাল হোসেন মাদক বিক্রির টাকা সবার মধ্যে বণ্টন করে দিতেন।

মতিঝিল থানায় এ সংক্রান্ত মামলা হয়েছে বলেও জানান গোয়েন্দা পুলিশের এই কর্মকর্তা।

টিটি/কেএসআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]