সব সমুদ্রবন্দরের জন্য একক আইন করার সুপারিশ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:০৩ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০২১
ফাইল ছবি

সব সমুদ্রবন্দরের জন্য একক আইন করার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। এছাড়া বাংলাদেশের সব নদ-নদী পর্যায়ক্রমে দখলমুক্ত করার যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া এবং জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের সার্বিক কার্যক্রম সম্পর্কে একটি প্রেজেন্টেশন পরবর্তী সভায় উপস্থাপনের সুপারিশ করে কমিটি।

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ৩৬তম বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়। বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

এছাড়াও বৈঠকে কমিটির সদস্য মোঃ মজাহারুল হক প্রধান, রনজিত কুমার রায়, ডাঃ সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, মোঃ আছলাম হোসেন সওদাগর এবং এস এম শাহজাদা বৈঠকে অংশ নেন।

জানা যায়, বৈঠকে ‘মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ বিল, ২০২১’ এবং জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের সার্বিক কার্যক্রম এবং বর্তমানে এর সমস্যা ও সমাধান সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

বৈঠকে এরআগে জাতীয় সংসদে উত্থাপিত এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে রিপোর্ট দেওয়ার জন্য কমিটিতে পাঠানো ‘মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ বিল, ২০২১’ সম্পর্কে পুঙ্খানুপুঙ্খরূপে আলোচনা করা হয়। এরপর প্রয়োজনীয় সংযোজন, সংশোধন ও পরিমার্জনের পর বিলটি জাতীয় সংসদে পাসের উদ্দেশ্যে অধিকতর সংশোধিত আকারে সংসদে রিপোর্ট দেওয়ার জন্য সুপারিশ করে কমিটি।

বৈঠকে ২৭ অক্টোবর মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়ার ৫ নম্বর ফেরিঘাটে রো রো শাহ আমানত ফেরি দুর্ঘটনার কারণ সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য সাব কমিটির গঠন করা হয়। কমিটির সদস্য শাহজাহান খানকে আহ্বায়ক এবং রনজিত কুমার রায়, ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল ও মো. আছলাম হোসেন সওদাগরকে সদস্য করে চার সদস্যের সাব কমিটি গঠন করা হয়।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ এবং জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান, লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় এবং সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

এইচএস/এমএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]