বাংলাদেশে উগ্রবাদ-সন্ত্রাসবাদের মদত দিচ্ছে পাকিস্তান: সনাক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩২ পিএম, ২৬ নভেম্বর ২০২১

বাংলাদেশে বিগত কয়েকটি ঘটনা প্রমাণ করে যে, দেশে উগ্রবাদ, সন্ত্রাসবাদ আছে। আর এসবের মদত দিচ্ছে পাকিস্তান। তারা এখনও মুক্তিযুদ্ধের ঘটনায় বাংলাদেশের কাছে ক্ষমা চায়নি। তাই তাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রাখা যায় না।

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের মওলানা মোহাম্মদ আকরাম খাঁ হলে বাংলাদেশ সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

“জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ ও উগ্রবাদ রুখে দাঁড়াও” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ২০০৮ সালের ২৬ নভেম্বর মুম্বাই হামলাসহ অন্যান্য হামলার প্রতিবাদে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে সনাক।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নিরাপত্তা বিশ্লেষক অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আলী শিকদার বলেন, এ উপমহাদেশের অর্থনৈতিক জোটের ক্ষমতা অনেক বেশি, কিন্তু পাকিস্তানের এ উগ্রবাদের কারণে আমরা পিছিয়ে যাচ্ছি। তাই মুম্বাইয়ে হামলা হলে এটা ভাবার কোনো অবকাশ নেই যে, এটা তো ভারতে ঘটেছে, তাতে আমাদের কী!

তিনি বলেন, একাত্তরের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতেই পাকিস্তান ধীরে ধীরে উগ্রবাদের দিকে ধাবিত হচ্ছে। স্বাধীনতার ৫০ বছর পর বাংলাদেশ পাকিস্তানের তুলনায় রাষ্ট্রীয়, সামাজিক, রাজনৈতিক, ধর্মীয় দিক থেকে সফল। পাকিস্তানের উগ্রবাদ, ধর্মান্ধতার কারণে তারা পিছিয়ে যাচ্ছে। এর নেতৃত্ব দেয় পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ও মোল্লাবাহিনী।

তিনি আরও বলেন, পাকিস্তানের জনগণের প্রতি আমরা আহ্বান জানাই, আপনাদের এই মোল্লাতন্ত্র, সামরিকতন্ত্র আপনারা প্রত্যাখ্যান করুন। বাংলাদেশে গণহত্যার পেছনে দায়ীদের বিচার করুন, আমাদের সম্পদের ক্ষতিপূরণ দিন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক নিজামুল হক ভুইয়া বলেন, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন করছি আমরা, এখনো পাকিস্তান আমাদের কাছে ক্ষমা চায়নি। অথচ তাদের প্রেসিডেন্ট আমাদের প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করতে আসার কারণে গণমাধ্যমগুলোতে পাকিস্তান ও বাংলাদেশের সম্পর্কে একটি সুবাতাসের আভাস পেয়েছিলাম। তারা তো আমাদের কাছে ক্ষমা চায়নি, আমরা কেন তাদের সাথে সুসম্পর্ক রাখতে যাবো?

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে সনাকের আহ্বায়ক অধ্যাপক নিম চন্দ্র ভৌমিক বলেন, এ উপমহাদেশে সব সূচকে আমরা পাকিস্তানকে হারিয়েছি। আমরা সাংগঠনিকভাবে সারাদেশে কাজ করলে জঙ্গিবাদকে রুখে দাঁড়াতে পারবো।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ স্যোশাল অ্যাক্টিভিস্ট ফোরামের প্রধান সমন্বয়ক মুফতি মাসুম বিল্লাহ, সনাকের সদস্য সচিব মতিলাল রায়, মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ফজলে আলীসহ সনাকের অন্যান্য সদস্যরা।

এমআইএস/এমকেআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]