গ্রামীণ অবকাঠামো-পানি-স্যানিটেশন নিয়ে কাজ করতে চায় এডিবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:১০ পিএম, ৩০ নভেম্বর ২০২১

সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দর্শন ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে গ্রামীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা, সুপেয় পানি সরবরাহ এবং স্যানিটেশন ব্যবস্থাপনায় স্থানীয় সরকার বিভাগের সঙ্গে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক-এডিবি কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) মন্ত্রণালয়ে এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর এডিমং গিনটং স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে এসে তাদের এ আগ্রহের কথা জানান।

এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর সাক্ষাৎকালে কক্সবাজারে বর্জ্য ব্যবস্থাপনাসহ গ্রামীণ এলাকায় পানি ও স্যানিটেশন, রাস্তাঘাট, ব্রিজ-কালভার্টসহ বিভিন্ন অবকাঠামো উন্নয়নে সহযোগিতা প্রদানের বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

তাদের আগ্রহকে স্বাগত জানিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, দেশের অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা এবং এসডিজি-২০৩০ বাস্তবায়নে সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ। এই দুই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে এডিবির যেসব ক্ষেত্রে কাজ করার সুযোগ রয়েছে সেগুলো চিহ্নিত করে অর্থায়নের মাধ্যমে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

এডিবির অর্থায়নে পানি-স্যানিটেশন ও অবকাঠামোসহ যেসব চলমান প্রকল্প রয়েছে সেগুলো নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সমাপ্ত করার জন্য কান্ট্রি ডিরেক্টরের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মো. তাজুল ইসলাম দ্রুত প্রকল্প বাস্তবায়নে অর্থ ছাড় করার আহ্বানও জানান।

এসময়, এডিবি গ্রামীণ স্যানিটেশন ব্যবস্থা উন্নয়ন সংক্রান্ত প্রস্তাবিত প্রকল্পে অর্থায়নের আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলে জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর-এলজিইডি টেকসই রাস্তাঘাটসহ সকল অবকাঠামো নির্মাণের লক্ষ্যে লো-কস্ট অর্থাৎ স্বল্প খরচ ফর্মুলা থেকে বের হয়ে এসেছে। টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে সরকার বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

সাক্ষাৎকালে অন্যন্যের মধ্যে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী মো. আব্দুর রশীদ খান, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইফুর রহমান, ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান উপস্থিত ছিলেন।

আইএইচআর/ইএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]