জাল ভিসা প্রস্তুত করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিতেন তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:২৬ পিএম, ০১ ডিসেম্বর ২০২১

বিদেশ পাঠানোর কথা বলে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া প্রতারক চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। গ্রেফতাররা হলেন- মো. আব্দুল মান্নান (৬৬), আতাউর রহমান (৫০)।

এসময় তাদের কাছ থেকে ১০টি বাংলাদেশি পাসপোর্ট, ১৪টি বিভিন্ন এয়ারলাইন্সের টিকিট, বিভিন্ন দেশের ১১টি জাল স্টিকার ভিসা, দুটি ক্যাসিনো কার্ড, একটি বিট কয়েন ও মেডিকেল পরীক্ষার রিপোর্টসহ সুইডেন ও কোরিয়ান ভিসার ৯টি আবেদন ফরম উদ্ধার করা হয়।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) সিআইডির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) আজাদ রহমান এসব কথা জানান।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর শাহজাহানপুর এলাকার শান্তিবাগ ও গুলশানের কালাচাদপুর থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। চক্রটি নিয়োগ দেওয়া প্রতিনিধিদের মাধ্যমে বিদেশ যাওয়ার ইচ্ছা আছে এমন লোকদের টার্গেট করে ফাঁদে ফেলতো। এরপর সুইডেন, দক্ষিণ কোরিয়া ও নেপালসহ বিভিন্ন দেশে পাঠানোর নামে মোটা অংকের টাকার চুক্তি করতো তারা। চুক্তি করা টাকার কিছু অংশ আ. মান্নানের হাতে আসলে তিনি তাদের বিদেশ গমনে প্রলুব্ধ করার লক্ষ্যে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য প্রথমে জনপ্রতি সাড়ে ১০ হাজার টাকা করে নিতেন। পরে চক্রটি তাদের নির্ধারিত ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মাধ্যমে ভুক্তভোগীদের ভুয়া মেডিকেল করাতেন। মেডিকেলের জন্যও তারা ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায় করতেন।

jagonews24

সবশেষে তারা বিভিন্ন অ্যাম্বাসিতে পাসপোর্ট জমা দেবে বলে চুক্তির বেশিরভাগ টাকা হাতিয়ে নিতেন। পরে তারা বিভিন্ন দেশের জাল ভিসার স্টিকার তৈরি করে পাসপোর্টে লাগিয়ে হস্তান্তর করতেন। গ্রাহক পাসপোর্ট ফিরে পেলেও বিদেশে আর যাওয়া হয় না। চক্রটি বিভিন্ন এয়ারের টিকিট প্রস্তুত করে চুক্তির সব টাকা হাতিয়ে নেয়।

আজাদ রহমান আরও বলেন, গ্রেফতাররা জাল ভিসা দিয়ে শুধু এই ভুক্তভোগীদের কাছ থেকেই ৭৬ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। পরবর্তী সময়ে ভুক্তভোগীরা প্রাপ্ত এয়ার টিকিট ও ভিসা যাচাই করে জাল বলে জানতে পারেন।

টিটি/এআরএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]