ওমিক্রন শনাক্তে সিভাসুতে এলো কিট

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৫২ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১
ফাইল ছবি

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়েপড়া করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন শনাক্তে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস ইউনিভার্সিটি (সিভাসু) এনেছে বিশেষ রিঅ্যাজেন্ট (কিট)।

সোমবার (৬ নভেম্বর) সকালে এক’শটি কিট বিশ্ববিদ্যালয়ের করোনা শনাক্তের ল্যাবে পৌঁছেছে বলে জানিয়েছেন উপাচার্য ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ।

তিনি জাগো নিউজকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব অর্থায়নে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা ব্যয়ে মোট এক’শটি কিট সংগ্রহ করা হয়েছে। এগুলো দিয়ে এক’শ জনকে পরীক্ষা করা যাবে। এখানে পরীক্ষার কয়েকঘণ্টার মধ্যে প্রাথমিকভাবে জানা যাবে ব্যক্তিটি ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত কি-না। প্রাথমিকভাবে শনাক্তের পূর্ণাঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্সের মাধ্যমে শতভাগ নিশ্চিত হওয়া যাবে।

তিনি বলেন, আমাদের হাতে কিট পৌঁছানোর বিষয়টি স্বাস্থ্য বিভাগকে জানানো হয়েছে। তারা পরীক্ষার জন্য কাউকে পাঠালে আমরা পরীক্ষা করে দেব। আমাদের কিট শেষ হওয়ার পর সরকার যদি অর্থায়ন করে তবে আমরা আরও সংগ্রহ করে পরীক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারবো।

ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার পর করণীয় কী জানতে চাইলে তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাস মিউটেশনের মাধ্যমে সম্পূর্ণ স্পাইকপ্রোটিন পাল্টে এই নতুন ভ্যারিয়েন্টের সৃষ্টি। এটি আগের তুলনায় কয়েকগুণ বেশি সংক্রমণশীল। শনাক্তের সঙ্গে সঙ্গে আইসোলেশনে চলে যেতে হবে। এরপর চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। এছাড়াও সংক্রমণ ঠেকাতে সবাইকে মাস্ক এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

এদিকে, করোনার এই নতুন ভ্যারিয়েন্ট মোকাবিলায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনায় প্রস্তুতি নিয়েছে চট্টগ্রামের প্রশাসন। বিদেশফেরতদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা, করোনার লক্ষ্মণ দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে পরীক্ষা, স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতসহ মোট ১৫টি নির্দেশনা নিয়ে কাজ করছে প্রশাসন।

মিজানুর রহমান/এমআরএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]