‘একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধকে জনযুদ্ধে পরিণত করেন বঙ্গবন্ধু’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩৫ পিএম, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ ছিলো একটি জনযুদ্ধ। বঙ্গবন্ধু দীর্ঘ ২৩ বছরে এ জনযুদ্ধ সংগঠিত করে বিশ্বের ইতিহাসে বাংলা ভাষাভিত্তিক একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করেছেন। জনযুদ্ধের ধারাবাহিকতায় অস্ত্র ছাড়া, প্রশিক্ষণ ছাড়া পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে মাত্র নয় মাসের যুদ্ধে বাঙালিরা বিজয় অর্জন করতে পেরেছি। কিছু সংখ্যক চিহ্নিত রাজাকার, আলবদর, আলসামস ছাড়া এদেশের প্রতিটি মানুষ এ জনযুদ্ধে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে অংশ নিয়েছিল। এমনকি মা- বোনেরা মুক্তিযোদ্ধাদের খাদ্য দিয়ে, আশ্রয় দিয়ে, তথ্য দিয়ে যুদ্ধে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন।

‘ভালুকা মুক্ত দিবস’ উপলক্ষে বুধবার (৮ ডিসেম্বর) ময়মনসিংহের ভালুকায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত সমাবেশে অনলাইনে সংযুক্ত থেকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ঘাঁটি হিসেবে আখ্যায়িত করে মোস্তাফা জব্বার বলেন, মুক্তিযুদ্ধে আমরা যে যে অবস্থানেই ছিলাম সেখান থেকেই লড়াইয়ে অংশ নিয়েছি। এরই ধারাবাহিকতায় ৮ ডিসেম্বর ভালুকা শত্রুমুক্ত করা সম্ভব হয়েছে। এ অঞ্চল শত্রুমুক্ত হওয়ার জন্য যে চেষ্টা করা হয়েছে তা ইতিহাসে অতুলনীয় হয়ে থাকবে।

তিনি বলেন, সাধারণ জনগণের সহায়তা ছাড়া আমরা যুদ্ধে সফল হতাম না। তিনি এ বিজয়ে রণাঙ্গনের নেতৃত্বের জন্য মরহুম আফসার মেজরের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানাই এবং হানাদার মুক্ত অভিযানে মুক্তিযোদ্ধাদের সহায়তার জন্য মা-বোনদের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি বলেই দীর্ঘ চড়াই-উৎরাই এবং নানা অশুভ ষড়ন্ত্রের কঠিন পথ অতিক্রম করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ ঘুরে দাঁড়িয়েছে। বঙ্গবন্ধুর লালিত স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিপ্লবের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে।

তিনি বলেন, জাতির জনক ডিজিটাল বাংলাদেশের বীজ বপন করে গেছেন। ৭৫ পরবর্তী দীর্ঘ ২১ বছর পর ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুগান্তকারী বিভিন্ন কর্মসূচি নেন ও বাস্তবায়নের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর রোপণ করা ডিজিটাল বাংলাদেশের বীজটি চারা গাছে রূপান্তর করেন। ২০০৯ সাল থেকে গত ১৩ বছরে কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ বিশ্বয়কর অগ্রগতি অর্জন করেছে, যা বিশ্বে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

মন্ত্রী ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা করেন এবং সংসদ সদস্য কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু মন্ত্রীর পক্ষে বেলুন উড়িয়ে ভালুকা মুক্ত দিবসের বিভিন্ন কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। এ সময় স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতারা, স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে ভালুকায় মুক্ত দিবস উপলক্ষে সকাল সাড়ে ১১টায় সংসদ সদস্য কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনুর নেতৃত্বে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা কার্যালয় থেকে একটি বিজয় র্যালি বের হয়। র্যালিটি পৌর সদরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এসে শেষ হয়।

এইচএস/এমএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]