এক লাফে ১৫০ শতাংশ বেতন বাড়াতে চান চট্টগ্রাম ওয়াসার এমডি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:১৬ এএম, ২৫ জানুয়ারি ২০২২

চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (এমডি) মূল বেতন এক লাখ ৮০ হাজার টাকা। সেখান থেকে বাড়িয়ে এখন তিনি চান সাড়ে চার লাখ টাকা। অর্থাৎ এক লাফে দুই লাখ ৭০ হাজার টাকা বা ১৫০ শতাংশ বেশি বেতন চান প্রতিষ্ঠানটির এমডি এ কে এম ফজলুল্লাহ।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) ওয়াসার ৬৫তম বোর্ডসভায় এমডির বেতন বাড়ানোর প্রস্তাব পর্ষদে উত্থাপন করা হয়। তবে এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি পর্ষদ। প্রস্তাবটি যাচাইয়ের জন্য গঠন করা হয়েছে চার সদস্যের একটি কমিটি।

কমিটির প্রধান করা হয়েছে পর্ষদ সদস্য ও স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ ইব্রাহিমকে। বাকি তিনজন হলেন- অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হাসান খালেদ ফয়সাল, চাটার্ড অ্যাকাউট্যান্ট সমিতির সাবেক সভাপতি শওকত হোসেন ও চট্টগ্রাম ওয়াসার উপ-মহাব্যবস্থাপক (অর্থ) শামসুল আলম। নবগঠিত কমিটিকে পরবর্তী পর্ষদ সভায় প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এর আগে গত বছরের ৪ মে ৬১তম বোর্ড সভায়ও এমডি এ কে এম ফজলুল্লাহর বেতন-ভাতা বৃদ্ধির প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়েছিল। তখন বোর্ড দুই সদস্যের কমিটি গঠন করে দিয়েছিল। তৎকালীন বোর্ড সদস্য ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সত্যজিৎ কর্মকারের নেতৃত্বাধীন ওই কমিটির সদস্য ছিলেন বোর্ড সদস্য শওকত হোসেন।

জানতে চাইলে বোর্ড সদস্য শওকত হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, এমডির বেতন বৃদ্ধিতে আগের কমিটিতেও আমি ছিলাম। করোনার সংক্রমণজনিত কারণে তখন সভাও করা হয়নি এবং প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়নি। সোমবারের সভায় আরেকটি কমিটি করা হয়েছে। তবে কমিটিকে প্রতিবেদন দিতে নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দেওয়া হয়নি। আগামী সভায় প্রতিবেদন উপস্থাপন করতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চট্টগ্রাম ওয়াসা এমডি এ কে এম ফজলুল্লাহর মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

এ কে এম ফজলুল্লাহ চট্টগ্রাম ওয়াসায় ১৯৬৮ সালে সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে যোগ দেন। পরে নির্বাহী প্রকৌশলী হিসেবে ১৯৯৮ সালে অবসর নেন। এরপর ২০০৯ সালের ৮ জুলাই এক বছরের জন্য চট্টগ্রাম ওয়াসার চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পান। এরপর ২০১১ সালে ঢাকা ওয়াসার আদলে চট্টগ্রাম ওয়াসাতেও এমডি পদ তৈরি করা হয়। এমডি পদে নিয়োগ পান তৎকালীন চেয়ারম্যান এ কে এম ফজলুল্লাহ। সেই থেকে এই পদে দায়িত্ব পালন করে আসছেন তিনি।

মিজানুর রহমান/এমএইচআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]