‘নব্বইয়ের আন্দোলনের ১০ দফার রফা আজও হয়নি’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪১ পিএম, ২৯ জানুয়ারি ২০২২
আব্দুস সাত্তার খানের শোকসভায় বক্তব্য রাখেন নব্বইয়ের স্বৈরাচারবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের নেতারা

‘নব্বইয়ের স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে সর্বদলীয় ছাত্রঐক্য গঠন হয়েছিল। সে সময়ের যে ১০ দফা ছিল, তার রফা আজও হয়নি। তাই ভাবতে হবে আমাদের করণীয় কী। আমরা যে দলই করি না কেন, আমাদের করণীয় হতে হবে এক।’

শনিবার (২৯ জানুয়ারি) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে নব্বইয়ের স্বৈরাচারবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুস সাত্তার খানের স্মরণে শোকসভার আয়োজন করা হয়। এতে এসব কথা বলেন স্বৈরাচারবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সর্বদলীয় ছাত্রঐক্যের নেতারা।

শোকসভায় বক্তারা বলেন, আমরা যে শিক্ষানীতি চেয়েছিলাম, তা পাইনি। গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছিলাম, তাও পাইনি। দেশে এখন ভোটাধিকার নেই। পাঁচ বছর পর পর শুধু একটা নির্বাচন হয়।

বক্তারা আরও বলেন, মানুষের মৌলিক চাহিদা ঠিকমতো পূরণ হচ্ছে না। আমরা কথা বলতে পারছি না, মাথার ওপর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ঝুলছে। এই অবস্থায় আমরা যখন আব্দুস সাত্তারকে স্মরণ করবো, তখন আমাদের ভাবতে হবে, আমাদের কী করণীয়।

নব্বইয়ের স্বৈরাচারবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের নেতারা আরও বলেন, আমরা আব্দুস সাত্তারকে স্মরণ করার জন্য মিলিত হয়েছি। কারণ, তিনি ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। তিনি স্বৈরাচার এরশাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন।

মুক্তিযুদ্ধ প্রসঙ্গে বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সালে সব মানুষ মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিল। তার প্রমাণ ৩০ লাখ মানুষ মারা গেছে। এতেই প্রমাণিত হয় যুদ্ধের ব্যাপকতা। এরশাদ সরকারের আমলেও জেলায় জেলায় মানুষ মারা গেছে। কতো মানুষ নির্যাতিত হয়েছে তার সঠিক পরিসংখ্যান নেই।

এক সময়ের অনেক আন্দোলনকারী এখন নিজেকে গুটিয়ে নিচ্ছেন মন্তব্য করে বক্তারা বলেন, অনেকেই মুক্তিযুদ্ধ করেছেন, কিন্তু তারা এখন ‘স্বার্থপর’ হয়ে গেছেন। ’৯০ সালে যারা সংগ্রাম করেছেন, তাদের অনেকেই নিজের স্বার্থের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন।

শোকসভায় উপস্থিত ছিলেন জাসদ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সফি আহমেদ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সাবেক সভাপতি বেলাল চৌধুরী, জাতীয় ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মনছুরুল হাই, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক জায়েদ ইকবাল খান, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুজাউদ্দিন জাফর, জাসদ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাজমুল হক প্রধান, বিপ্লবী ছাত্র সংঘের সাবেক আহ্বায়ক মোকলেস উদ্দিন সাহিন, বাংলাদেশ ছাত্র সমিতির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ছালেহ আহমেদ প্রমুখ।

এমআইএস/কেএসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]