‘ঐক্যবদ্ধ থাকলে আ’লীগের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৯:৫৮ পিএম, ১৪ মে ২০২২

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদানে দেশ আজ উন্নয়নশীল দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। এ সাফল্য শেখ হাসিনার, এ সাফল্য আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতা-কর্মীদের। তৃণমূল আওয়ামী লীগের ঐক্য ধরে রাখা গেলে শেখ হাসিনার সমাদৃত ও প্রশংসিত অর্জনগুলোর কারণে আওয়ামী লীগের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।

শনিবার (১৪ মে) সকাল ১০টায় চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি কনভেনশন সেন্টারে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, তৃণমূল ঐক্যবদ্ধ না হলে ২০০১ সালের চেয়েও খারাপ পরিণতি আমাদের জন্য অপেক্ষা করবে। আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি এখন থেকে নিতে হবে। তূণমূল আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী সংগঠন থাকলে কেউ আওয়ামী লীগকে পরাজিত করতে পারবে না, আগামী নির্বাচনে আমাদের বিজয় সুনিশ্চিত।

সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, বিএনপি সরকার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। যথেষ্ট দুর্নীতি করেছিল বিএনপি। কিন্তু ১/১১ এর তত্ত্বাবধায়ক সরকার সাজানো মামলায় গ্রেফতার করেছিল শেখ হাসিনাকে। খাদ্য ঘাটতির বাংলাদেশ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। বিদ্যুতের উৎপাদন বেড়েছে অনেকাংশে। উন্নয়নের যে ধারা দেখা যাচ্ছে তাতে বিশ্লেষকরা বলছেন, শিগগির বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবে। তাই এ দেশে শেখ হাসিনার সরকার বার বার দরকার।

বিশেষ বক্তা চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেন, তৃণমূলে নেতা-কর্মীরা হচ্ছে সংগঠনের প্রাণ, তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা বিশ্বস্ত, শেখ হাসিনার বিশ্বাস রয়েছে এ তৃণমূলের ওপর। তৃণমূলের ঐক্যের কারণে শেখ হাসিনা অতীতে বহু বিপদ সঙ্কুল পথ পেরিয়েছে। ঐক্যবদ্ধ থাকলে আওয়ামী লীগকে কেউ পরাজিত করতে পারবে না। তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা অহেতুক সমালোচনা করবেন না। দল-নৌকা আমাদের, নৌকাকে জিততেই হবে। শেখ হাসিনা মানে উন্নয়ন, অগ্রগতি। শেখ হাসিনা থাকলেই দেশ ভালো থাকবে।

‘ঐক্যবদ্ধ থাকলে আ’লীগের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ সহকারী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা ধারাবাহিকভাবে পর পর তিনবার দেশের শাসনভার নিয়ে আজ জনগণকে সেবা ও দেশের কল্যাণ করে যাচ্ছেন। আমি মনেকরি, বাংলাদেশের সবচেয়ে শক্তিশালী সংগঠন আওয়ামী লীগ। বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যার পর তার কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বাধীন বাংলাদেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও মানুষের ভোটের অধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আওয়ামী লীগের মতো দেশের মানুষের সেবা দিয়েছে এমন কোনো দল নেই।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চট্টগ্রাম-৮ আসনের সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন— শিক্ষা উপমন্ত্রী মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক সিরাজুল মোস্তফা, সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী, মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী এবং ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিরা।

সেপ্টেম্বরে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন:
চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগে আসছে সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে সম্মেলনের সম্ভাব্য সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। শনিবার সকালে নগরীর জিইসি কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত তৃণমূলের প্রতিনিধি সভায় এমন সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন উপস্থিত কেন্দ্রীয় নেতারা।

এর আগে আগামী জুন-জুলাই মাসের মধ্যে তিন বছর মেয়াদোত্তীর্ণ সব উপজেলায় সম্মেলনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ লক্ষ্যে আটটি উপজেলায় প্রস্তুতি নিতে আটটি সাংগঠনিক টিম গঠন করা হয়েছে। আটটি টিম আগামী ২১ মে প্রতিটি উপজেলায় একই সময়ে একযোগে বর্ধিত সভা করবেন। পাশাপাশি ১০ জুন জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির বর্ধিত সভায় উপজেলা থেকে আসা সিদ্ধান্তগুলো পর্যালোচনা করবেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

ইকবাল হোসেন/এমএএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]