‘জাতিসংঘ নয়, আমাদের স্বার্থেই এসডিজি বাস্তবায়ন করতে হবে’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৩৪ পিএম, ১৮ মে ২০২২

জাতিসংঘ না করলেও আমাদের স্বার্থেই টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়ন করতে হবে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

বুধবার (১৮ মে) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের কার্নিভাল হলে ‘সেকেণ্ড ন্যাশনাল কনফারেন্স এসডিজিস ইমপ্লিমেন্টেশন রিভিউ-২০২২’ এর সমাপনী অধিবেশনে সভাপতির বক্তব্যে এ কথা জানান তিনি।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, এসডিজি ও সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার (এমডিজি) কাছাকাছি কিছু বিষয় আছে। যা সরকার সফলভাবে অর্জন করেছে। জাতিসংঘ স্বীকার করেছে, আমাদের অর্জন ভালো। এজন্য আমাদের প্রধানমন্ত্রী পুরস্কারও পেয়েছেন। এই পুরস্কার আমাদের সবার।

‘এসডিজি অর্জনে আমাদের আরও শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে হবে। নিজেদের স্বার্থে আমাদের কাজটা করতে হবে। এটাতে আমাদের মঙ্গল আছে। জাতিসংঘ ওন না করলেও আমাদের নিজেদের স্বার্থে এজডিজি বাস্তবায়ন করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, আমাদের আরও একটা লক্ষ্য আছে। সেটা হলো- পৃথিবীর অন্যান্য জাতির সঙ্গে সম্মান নিয়ে বাঁচতে চাই। আমরা অন্ন চাই, মাছ-মাংস খেয়ে বাঁচতে চাই। এসব লক্ষ্য পূরণে প্রধানমন্ত্রী নিরলসভাবে কাজ করছেন। দেশের জনগণ আমাদের সঙ্গে আছে। আমরা সবাই মিলে টিম হিসেবে কাজ করবো। এতে আমাদের সম্মান বাড়বে।

‘এমডিজি অর্জন সফলভাবে শেষ হওয়ার পর এসডিজি নেওয়া হয়েছে। এসব সিদ্ধান্ত জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে গৃহিত হয়। এক সময় আমাদের নানা যন্ত্রণা ছিল। নিম্ন আয়ের যন্ত্রণা, খেতে না পাওয়ার যন্ত্রণা ও সুপেয় পানি না পাওয়ার যন্ত্রণা ছিল। সকল যন্ত্রণা থেকে জাতিকে মুক্তি দিতে শেখ হাসিনা কাজ করছে।’

অধিবেশনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, এসডিজির মেয়াদ ২০১৬ থেকে ২০৩০ সাল পর্যন্ত। আমাদের এসডিজির অসাধারণ অগ্রগতি হয়েছে। এজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পুরস্কৃত হয়েছেন। বাংলাদেশ সঠিক পথেই রয়েছে। সকল সূচকে বাংলাদেশ ভালো করেছে।

তিনি আরও বলেন, খাদ্য নিরাপত্তা, শিশু মৃত্যুহার ও দারিদ্র্য দূরীকরণসহ নানা কাজে ভালো করেছি। সরকার ২০৩০ সালের আগেই এসডিজির সব কিছু অর্জন করেছে। আর এজন্য সকল কৃতিত্ব আমাদের প্রধানমন্ত্রীর।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক জুয়েনা আজিজ ও পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের প্রধান (অতিরিক্ত সচিব) খান মো. নূরুল আমীন।

এমওএস/এমপি/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]