‘শাহজালালের ইমিগ্রেশনে জিজ্ঞাসাবাদের নামে যাত্রী হয়রানি নয়’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩৫ পিএম, ২৩ মে ২০২২

ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশনে জিজ্ঞাসাবাদের নামে যাত্রী হয়রানি না করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।

সোমবার (২৩ মে) দুুুুপুরে বিমানবন্দর পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়সভায় এ নির্দেশনা দেন তিনি।

বিমান প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা আজকে এখানে এসেছি এয়ারপোর্টের ব্যবস্থাপনা, যাত্রীসেবাসহ সবাই যথাযথভাবে কাজ করে কি না সেটা দেখতে। আমরা সার্বক্ষণিক এগুলো দেখি। আমরা মন্ত্রণালয়ে একটা টিম করেছি। সপ্তাহে তিনদিন মন্ত্রণালয়ের লোকজন এখানে থাকে। কোনো ধরনের অবস্থাপনা হয় কি না তারা দেখেন। তিনি বলেন, আমরা আপনাদের সামনেই এখানে যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বলেছেন সেবার মান ভালো। ইমিগ্রেশনে তাদের কোনো সমস্যা হয় নেই।

যাত্রী হয়রানি বন্ধের বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী হলেন, এয়ারপোর্টে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে সন্দেহ হলে যাকে চেক করা দরকার শুধু তাকেই করুন। আমাদের প্রতিদিন ২১ হাজারের মতো যাত্রী আসা-যাওয়া। সবাইকে যদি চেকের সম্মুখীন হতে হয় তবে সেটা যাত্রী সেবার অনুকূল হবে না। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। প্রত্যেক যাত্রীকে যেন জিজ্ঞাসাবাদ করা না হয়। হয়রানি না করা হয়। যাদের তারা প্রয়োজন মনে করবে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করবে। প্রয়োজনে তাদের আলাদা করে জিজ্ঞাসা করবেন। এ কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করার জন্যই আজকে এখানে আসা।

যাত্রী সেবার মান বাড়ানো নিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের ট্রলি সংকট ছিল। সেটা এখন আর নেই। লাগেজ বেল্টে যেন কোনো সমস্যা না হয় এ জন্য অনেকগুলো ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা বসিয়েছি। গত ২৬ মার্চ আমরা টরেন্টোতে গিয়েছি। আগামী জুনের মধ্যে যেন টরেন্টোর ফ্লাইট কীভাবে সহজ ও যাত্রীসেবা সহজ হয় এ ব্যাপারে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে একটা টিম এসেছিল সিকিউরিটির ওপরে। তারা অত্যন্ত খুশি হয়েছেন।

এমএমএ/এমএএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]