বাংলাদেশে খাদ্য সংরক্ষণ খাতে বিনিয়োগ করতে চায় সার্বিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩০ পিএম, ২৬ মে ২০২২

বাংলাদেশে খাদ্যশস্যের সংরক্ষণ খাতে বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ঢাকায় সফররত সার্বিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিকোলা সেলাকোভিচ।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবুর সঙ্গে এক সৌজন্য সাক্ষাতে তিনি এ আগ্রহের কথা প্রকাশ করেন। রাজধানীর একটি হোটেলে এ সাক্ষাতের আয়োজর করা হয়।

সার্বিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, খাদ্য সংরক্ষণে তার দেশের কোম্পানিগুলো বিশ্বের অন্যতম সেরা। সার্বিয়ান অনেক প্রতিষ্ঠান আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে ব্যবসা সম্প্রসারণ করেছে। বাংলাদেশেও এ খাতে সার্বিয়ার বিনিয়োগের মাধ্যমে লাভবান হতে পারে।

এছাড়া সার্বিয়ার সঙ্গে ইউরোপ, ইউরেশীয় অর্থনৈতিক ইউনিয়ন ও তুরস্কের সঙ্গে মুক্তবাণিজ্য চুক্তি রয়েছে। তাই সার্বিয়া ও বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের জয়েন্ট ভেঞ্চারের মাধ্যমে ওই দেশগুলোতে শূন্য শুল্কের পণ্য রপ্তানির সুবিধা নেওয়ার আহ্বান জানান মন্ত্রী।

দু’দেশের বাণিজ্য বাড়াতে সরকারি পর্যায়ে দ্বৈত কর পরিহার ও বিনিয়োগ সুরক্ষা সংক্রান্ত দুটি চুক্তি করা, বাংলাদেশ থেকে নির্মাণ ও কৃষিখাতে দক্ষ ও আধা দক্ষ জনবল নেওয়ার ব্যাপারেও আগ্রহ প্রকাশ করেন তিনি। একই সঙ্গে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের সার্বিয়া থেকে কৃষি প্রকৌশলী বিষয়ে শিক্ষা নেওয়ার আহ্বান জানান নিকোলা সেলাকোভিচ।

মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু জানান, বাংলাদেশে মোড়কীকরণ, পরিবহন ও সংরক্ষণের অভাবে বছরে ৩০ শতাংশ কৃষিপণ্য নষ্ট হয়। দেশে শুধু আলু সংরক্ষণের জন্যই হিমাগার রয়েছে। অন্যান্য ফসলের ক্ষেত্রে তেমন কোনো সুবিধা নেই। তাই দেশে খাদ্য সংরক্ষণ খাতে সার্বিয়ার বিনিয়োগ করলে প্রযুক্তি স্থানান্তরের সুযোগও পাবে বাংলাদেশ।

বৈঠকে সার্বিয়ান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি ও এফবিসিসিআই শিগগির সমঝোতা চুক্তি সইয়ের ব্যাপারেও সম্মত হয়। এছাড়া সাক্ষাতে সূর্যমুখী বীজ আমদানি, সার্বিয়ার গমের চুক্তিভিত্তিক চাষাবাদ, এবং ঢাকায় সার্বিয়ার দূতাবাস স্থাপনের ব্যাপারে আলোচনা হয়।

এসময় সার্বিয়ার অ্যাসিসট্যান্ট মিনিস্টার ফর বাইল্যাটেরাল রিলেশন্স ভ্লাদিমির ম্যারিক, পররাষ্টমন্ত্রীর উপদেষ্টা ইভান জ্যাকসিক, এফবিসিসিআই'র সহ-সভাপতি হাবিব উল্লাহ ডন, পরিচালক আমজাদ হোসাইন, শমী কায়সার, ড. নাদিয়া বিনতে আমীন, আবুল কাশেম খান ও মহাসচিব মোহাম্মদ মাহফুজুল হক উপস্থিত ছিলেন।

ইএআর/এমএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]