প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৫৮ পিএম, ২৬ মে ২০২২

গত ৬ এপ্রিল ২০২২ তারিখে জাগো নিউজে ‘একজন গবেষণা করলো আরেকজন এটা দিয়ে পুরস্কার নিয়ে নিলো’ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিনা) মহাপরিচালক ড. মির্জা মোফাজ্জল ইসলাম।

প্রতিবাদলিপিতে দাবি করা হয়, সংবাদটি মিথ্যা, ভিত্তিহীন, বানোয়াট, পরিকল্পিত ও উদ্দেশ্যমূলক। জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (FAO) এবং আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা (TAEA) এর আউটস্ট্যান্ডিং অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড (Outstanding Achievement Award) এর মনোনয়ন ফরমে ২০১৪ সালে বিনার তৎকালীন প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা হিসেবে ড. মির্জা মোফাজ্জল ইসলাম ব্যক্তিগত ক্যাটাগরিতে আবেদন করেন। আবেদন ফরমে তিনি প্রধান ও সহযোগী প্রজননবিদ হিসেবে যে সমস্ত জাতের উদ্ভাবন, বৈশিষ্ট্য ও ফলাফল নিরূপণ করেছেন কেবল সে সমস্ত বিষয়েরই উল্লেখ করেছেন। তিনি অন্য কারো গবেষণালব্ধ কোনো বিষয়ই তার মনোনয়ন ফরমে সন্নিবেশ করেননি।

বিনার তৎকালীন মহাপরিচালক ড. এ এইচ এম রাজ্জাক মনোনয়ন ফরমে উল্লেখিত বিষয়গুলো যথাযথভাবে পর্যবেক্ষণ ও পরিবীক্ষণ করে স্বাক্ষর করেন। পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে বিনামুগ-১, বিনামুগ-২ এবং এটমপাট-৩৮ নামে যে বিষয়গুলোর অবতারণা করা হয়েছে মনোনয়ন ফরমে সেগুলো উল্লেখ করা হয়নি। যে বিষয়গুলোর উপর তিনি নিজে প্রধান প্রজননবিদ এবং সহযোগী প্রজননবিদ হিসেবে গবেষণা করেছেন, মনোনয়ন ফরমে কেবল সেগুলোই উল্লেখ করেছেন এবং তদবিষয়েই স্বীকৃতি পেয়েছেন।

আরও দাবি করা হয়েছে, অসত্য তথ্য সম্বলিত প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে ড. মির্জা মোফাজ্জল ইসলামের ব্যক্তিগত ও প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) এর সম্মান, সুখ্যাতি ও ভাবমর্যাদা ক্ষুণ্ন হয়েছে।

এ বিষয়ে প্রতিবেদকের বক্তব্য

আমার প্রতিবেদনে পুরস্কার প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের ঘোষণা, বিনার তৎকালীন মহাপরিচালকের বক্তব্য, পরবর্তীসময়ে দায়িত্ব পালন করা আরও তিনজন মহাপরিচালকের বক্তব্য এবং সংশ্লিষ্ট গবেষক তথা বিনার বর্তমান মহাপরিচালকের বক্তব্য তুলে ধরা হয়েছে। এতে প্রতিবেদকের নিজস্ব কোনো বক্তব্য নেই। এমনকি শিরোনামটিও সাবেক মহাপরিচালকের বক্তব্যের অংশ।

এসইউজে/এএসএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]