সারাবছর কচ্ছপগতি, একমাসেই এডিপির ৬৫ হাজার কোটি টাকা খরচের লক্ষ্য

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩৭ পিএম, ১৪ জুন ২০২২

বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) অনুমোদনের পর থেকে প্রথম দিকে বাস্তবায়নের গতি একেবারেই শ্লথ থাকে। এমনকি প্রথম ছয় মাস এভাবেই কেটে যায়। বিগত কয়েক বছর ধরেই এই ধারা চলমান আছে। সেই ধারাবাহিকতায় ২০২১-২২ অর্থবছরের ১১ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন হয়েছে মাত্র ৬৫ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের বাকি আছে আর মাত্র ১৬ দিন। অথচ এই ১৬ দিনসহ চলতি মাসে বাকি ৩৫ শতাংশ এডিপি বাস্তবায়ন করতে হবে, যা টাকার অঙ্কে ৬৫ হাজার ১৬৩ কোটি টাকা।

তবে বরাবরই শেষ সময়ে এসে এডিপি বাস্তবায়নে তোড়জোড় শুরু হয়। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। এবারের এডিপি সংশোধনীতে অর্থ বরাদ্দের পুরোটাই কমানো হয়েছে দাতাদের দেওয়া প্রকল্প সহায়তা খাত থেকে, যার পরিমাণ ১৭ হাজার ৭৭৪ কোটি টাকা। চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরে এডিপির মূল বরাদ্দ সংশোধন করে সাত দশমিক ৮৮ শতাংশ কমিয়ে দুই লাখ সাত হাজার ৫৫০ কোটি টাকা করেছে সরকার। এই আকার আগে ছিল দুই লাখ ২৫ হাজার ৩২৪ কোটি টাকা।

চলতি অর্থবছরের (জুলাই-মে) মাস পর্যন্ত এডিপি বাস্তবায়ন হার ৬৫ দশমিক ৫৬ শতাংশ, যা টাকার অঙ্কে এক লাখ ৪২ হাজার ৩৮৭ টাকা। চলতি অর্থবছরের শেষ মাস চলছে। ফলে এই মাসেই নানা উন্নয়ন প্রকল্পে আরও ৬৫ হাজার ১৬৩ কোটি টাকা খরচ করতে হবে।

এডিপি বাস্তবায়ন প্রসঙ্গে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলেন, চলতি অর্খবছরের মে মাস পর্যন্ত এডিপি বাস্তবায়ন হয়েছে ৬৫ দশমিক ৫৬ শতাংশ। গত বছরের একই সময় থেকে যা ৭ দশমিক ২ শতাংশ বেশি। এছাড়া একই সময়ে টাকার হিসাবে ২০ হাজার ৫৬ কোটি টাকা ব্যয় বেশি করতে পেরেছি। এটা স্বস্তিদায়ক বিষয়। কারণ বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির গতিশীলতা ছিল না এর আগে। তবে এখন গতি আরও বেড়েছে।

সংশোধিত এডিপির আওতায় মোট এক হাজার ৭৭০টি প্রকল্প চলমান রয়েছে। এর মধ্যে বিনিয়োগ প্রকল্প এক হাজার ৫২০টি, কারিগরি সহায়তা প্রকল্প ১৪২টি এবং স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা/করপোরেশনের নিজস্ব অর্থায়নে ১০৮টি প্রকল্প।

খাতভিত্তিক বরাদ্দ
সংশোধিত এডিপিতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে। এ খাতে ৫৫ হাজার ৮২৭ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে, যা মোট বরাদ্দের প্রায় ২৭ শতাংশ।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ প্রায় ৩৯ হাজার ২১৪ কোটি টাকা বা ১৮ দশমিক ৮৯ শতাংশ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে। তৃতীয় সর্বোচ্চ ২৩ হাজার ৫৯৬ কোটি টাকা বা ১১ দশমিক ৩৭ শতাংশ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে গৃহায়ণ ও কমিউনিটি সেক্টরে।

এছাড়া শিক্ষা খাতে দেওয়া হয়েছে ২০ হাজার ৮২৪ কোটি টাকা বা ১০ শতাংশ। স্থানীয় সরকার ও পল্লি উন্নয়ন খাতে ১৫ হাজার ৫২০ কোটি টাকা বা ৭ দমমিক ৪৮ শতাংশ।

স্বাস্থ্য খাতে দেওয়া হয়েছে ১৩ হাজার ৭৯৭ কোটি টাকা বা ৬ দশমিক ৬৫ শতাংশ। পরিবেশ, জলবায়ু পরিবর্তন ও পানি সম্পদ খাতে দেওয়া হয়েছে ৯ হাজার ৮৫ কোটি টাকা বা ৪ দশমিক ৩৮ শতাংশ।

সংশোধিত এডিপিতে কৃষি খাতে দেওয়া হয়েছে ৭ হাজার ২৭৯ কোটি টাকা বা ৩ দশমিক ৫১ শতাংশ। শিল্প ও অর্থনৈতিক সেবা খাতে দেওয়া হয়েছে ৪ হাজার ৫৩৮ কোটি টাকা বা ২ দশমিক ১৯ শতাংশ। এছাড়াও জনশৃঙ্খলা ও সুরক্ষা খাতে দেওয়া হয়েছে ৩ হাজার ৪৭৮ কোটি টাকা বা মোট বরাদ্দের ১ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

এমওএস/কেএসআর/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।