‘ধূমপান ও তামাকমুক্ত দেশ গড়তে সচেতনতার বিকল্প নেই’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০২:৪০ পিএম, ২৩ জুন ২০২২

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) সাবিনা ইয়াসমিন বলেছেন, আমাদের দেশে মৃত্যুহার বেশি। এর জন্য ধূমপানও অনেকাংশে দায়ী। এ মৃত্যুহার কমানোর জন্য সবাইকে ধূমপানমুক্ত হতে হবে। ধূমপান নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়ন করতে হবে। সেই সঙ্গে সচেতনতা বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, ২০৪০ সালে ধূমপান ও তামাকমুক্ত দেশ গড়ার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যে ভিশন রয়েছে, তা বাস্তবায়নের জন্য সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) দুপুরে চট্টগ্রাম ধূমপান ও তামাকজাতদ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন বাস্তবায়নে করণীয় বিষয়ক বিভাগীয় সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এ সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিভাগীয় কমিশনার মো. আশরাফ উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) হাসান শাহরিয়ার কবির, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. মিজানুর রহমান, চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি জাকির হোসেন খান।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ইসলামী ফাউন্ডেশন, জাতীয় ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর, পরিবেশ অধিদপ্তর, বিএসটিআই, এনজিও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

মো. আশরাফ উদ্দিন বলেন, দেশের ধূমপান নিয়ন্ত্রণ আইন হয়েছে ২০০৫ সালে। তবে এখনো পুরোপুরি বাস্তবায়ন সম্ভব হয়নি। এক গবেষণায় উঠে এসেছে, ধূমপানে সাত হাজার ধরনের খারাপ বিষাক্ত প্রভাব রয়েছে।

হাসান শাহরিয়ার কবির বলেন, ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর। অপরাধজগতে যাওয়ার প্রথম ধাপ ধূমপান। এর প্রভাব থেকে শিশুদের রক্ষা করতে হবে। এ কার্যক্রম গ্রাম-উপজেলা স্কুল পর্যায় থেকে শুরু করতে হবে। সরকারি অফিসে ধূমপান বন্ধ করার পদক্ষেপ নিতে হবে। ই-সিগারেট বন্ধ করতে হবে। এতে স্কুল শিক্ষার্থী ও তরুণ-তরুণীরা আসক্ত হচ্ছে। তাদের নিরুৎসাহিত করতে হবে।

ইকবাল হোসেন/জেএস/বিএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]