রাজধানীতে বাসায় বৃদ্ধার মরদেহ, অচেতন অবস্থায় দুজন উদ্ধার

ঢামেক প্রতিবেদক
ঢামেক প্রতিবেদক ঢামেক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:১৫ পিএম, ২৩ জুন ২০২২
হাজারীবাগের একটি বাসা থেকে উদ্ধার করা মোছা. শামীমা বেগম

রাজধানীর হাজারীবাগের একটি বাসা থেকে মোছা. আকলিমা বেগম (৬৬) নামের এক বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এছাড়া একই বাসা থেকে বশিরুল হক (৫২) ও মোছা. শামীমা বেগম (৪৮) নামের দুই ভাই-বোনকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার (২২ জুন) রাত সাড়ে আটটার দিকে তাদের উদ্ধার করা হয়। আকলিমা বেগম অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা শামীমা ও বশিরুলের খালা বলে জানায় পুলিশ। তিন দিনে আগে পুরান ঢাকার নিজ বাড়ি থেকে ভাগনির বাড়িতে বেড়াতে যান আকলিমা।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শামীমা ও বশিরুল একই বাসার দোতলা ও তিনতলায় থাকতেন। ওই বাসার পাশেই তাদের চাচা সিরাজুলের বাসা। বুধবার সিরাজুলের জামাই বাদল শশুর বাড়িতে আসেন।

জামাইয়ের আগমন উপলক্ষে বুধবার রাতে আকলিমা, শামীমা ও বশিরুলকে দাওয়াত দেন সিরাজুল। আপ্যায়নের জন্য তিনি স্থানীয় একটি দোকান থেকে খাবার কিনে আনেন।

দাওয়াত খাওয়া শেষে বাড়িতে ফিরে আসেন শামীমা ও বশিরুল। এর কিছুক্ষণ পর শামীমার বাসায় যান ভাতিজি জেসমিন আক্তার। বাসায় ঢুকতেই তিনি নিচতলায় আকলিমাকে মুখে কসটেপ ও হাত-পা বাঁধা অবস্থায় দেখতে পান। একপর্যায়ে শামীমা ও বশিরুলের ঘরে গিয়ে অচেতন অবস্থায় দেখেন জেসমিন। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে দুজনকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে যান।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া বলেন, হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে বশিরুল ও শামীমার পাকস্থলি ওয়াশ করে মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

হাজারীবাগ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. সাইদুল ইসলাম বলেন, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই ভাই-বোনকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যাই। তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিয়ে তাদের হাসপাতালের নতুন ভবনের মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

‘আকলিমার মরেদেহ ঘটনাস্থলেই রয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি ঢামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।’

কাজী আল-আমিন/এসএএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]