পদ্মা সেতুর চাপ রাজধানীর সড়কেও

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩৯ পিএম, ২৬ জুন ২০২২

রোববার ভোর থেকে যান চলাচল শুরু হয়েছে পদ্মা সেতুতে। তবে এর আগে থেকেই সেতুতে উঠতে যানবাহনের জটলা তৈরি হয় দুই প্রান্তে। এসব যানবাহনের যাত্রীদের একটা বড় অংশই এসেছেন পদ্মা সেতু পরিদর্শনে। পদ্মা সেতু এলাকায় গাড়ির চাপ বাড়ার সঙ্গে এর প্রভাব পড়েছে রাজধানীতেও। বিশেষ করে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারের উপরে ও নিচের সড়কে যানজট তৈরি হয়েছে।

শনিবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধনের পর রোববার ভোর থেকে সবার জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে পদ্মা সেতু। এদিন ভোর থেকেই উৎসুক জনতা মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকার বা মাইক্রোবাস নিয়ে পরিদর্শনে যান পদ্মা সেতু। এ কারণে সকাল থেকেই যানবাহনের চাপ ছিল সেতুর দুই প্রান্তে।

jagonews24

রোহান নামে এক গণমাধ্যমকর্মী ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে সকাল ৯টার দিকে যান পদ্মা সেতু দেখতে।

তিনি বলেন, পদ্মা সেতু পার হতে বড় ধরনের যানজটের মুখে পড়তে হয়। আবার ঘুরে এসে ঢাকামুখী হতেই বড় ধরনের যানজটের মুখে পড়তে হলো।

jagonews24

একই কথা বলেন তুষার নামে আরেকজন। তিনি বলেন, সকালে বাইক নিয়ে দুই বন্ধু পদ্মা সেতু দেখতে যায়। প্রথম দিনেই বড় যানজটের মুখে পড়লাম। আবার ঢাকায় ফিরতেও দেখি যানজট। এভাবে যানজট হলে যমুনা সেতুর মতো হয়ে যাবে পদ্মা সেতু। এজন্য এসব এলাকার সড়কগুলোতে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা আরও জোরদারের পরামর্শ দেন তিনি।

পদ্মা সেতুর যানবাহনের চাপ পড়ে ওই সড়ক থেকে রাজধানীর প্রবেশপথ যাত্রাবাড়ী এবং আশপাশের এলাকায়। এতে করে রাজধানীর মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারসহ বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হয়েছে যানজট। গাড়ির দীর্ঘসারি দেখা গেছে পল্টন, কমলাপুর স্টেডিয়াম বা টিটিপাড়া, গুলিস্থান, ঢাকা মেডিকেল সংলগ্ন ফ্লাইওভার, মগবাজার, রামপুরা, খিলগাঁও এবং মতিঝিল-ইত্তেকাক মোড় এলাকাতেও। এ যানজট দূর করতে বেগ পোহাতে হয় দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের।

jagonews24

এনিয়ে এক ট্রাফিক পুলিশ কর্মকর্তারা বলেন, উদ্বোধনের পরই মানুষ আজ পদ্মা সেতু দেখতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছে। যে যার মতো করে ব্যক্তিগত গাড়ি, মাইক্রোবাস, মোটরসাইকেল নিয়ে গেছে। বাড়তি গাড়ির চাপ পড়ায় কিছুটা যানজট তৈরি হয়েছে। এটা হয়তো আরও দু-একদিন থাকবে। এরপর ঠিক হয়ে যাবে। আবার ঈদের আগে কিছুটা চাপ তৈরি হবার আশঙ্কা রয়েছে।

ইএআর/এমএইচআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]