শতভাগ বিদ্যুতায়নের পর সেবা বাড়ানোর তাগিদ প্রতিমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২৮ পিএম, ২৯ জুন ২০২২
বিদ্যুৎ বিভাগের সঙ্গে এর আওতাধীন দপ্তর, সংস্থা ও কোম্পানির বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ

সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় নেতৃত্ব দিতে নিজেদের প্রস্তুত করার আহ্বান জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে বিদ্যুৎ বিভাগ নেপথ্যে কাজ করছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২০৪১ সালে বাংলাদেশ একটি জ্ঞানভিত্তিক, সুখী-সমৃদ্ধ, উন্নত দেশে পরিণত হবে। এর নেপথ্যে যে বিপুল আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন ঘটবে তার মূলে থাকবে বিদ্যুৎ। শতভাগ বিদ্যুতায়ন হয়েছে, এখন বিদ্যুৎ সেবা আরও বাড়াতে হবে। টিমওয়ার্ক করার জন্যই এই অর্জন দ্রুত হয়েছে। টিমওয়ার্ক করেই কর্মদক্ষতা বাড়াতে হবে।

বুধবার (২৯ জুন) বিদ্যুৎ ভবনে বিদ্যুৎ বিভাগের সঙ্গে এর আওতাধীন দপ্তর, সংস্থা ও কোম্পানির বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি সরকারি কর্মকর্তাদের দায়িত্ব পালনের একটি জবাবদিহিমূলক ব্যবস্থা। কখন কোন কাজ সম্পাদন করতে হবে, তার টাইমলাইন থাকায় সাফল্য পেতে সহজ হয়।

তিনি বলেন, অতীতে ভালো করলেও বিগত দুই বছরে অর্জিত সম্মানজনক অবস্থান বিদ্যুৎ বিভাগ ধরে রাখতে পারেনি। আগামীতে প্রথম স্থান পেতে হবে। আমাদের যে অর্জন হয়েছে তা ধরে রাখা হবে। রক্ষণাবেক্ষণের জায়গাতে আরও সচেতন হতে হবে।

অনুষ্ঠানে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির আওতায় ২০২১-২২ অর্থবছরের শুদ্ধাচার পুরস্কার পান নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জাকিউল ইসলাম, বিদ্যুৎ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মু. মোহসিন চৌধুরী, প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. আনিসুল হক এবং অফিস সহায়ক আফরোজা আক্তার।

বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব মো. হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পিডিবির চেয়ারম্যান মো. মাহবুবুর রহমান, পাওয়ার সেলের ডিজি মোহাম্মদ হোসাইনসহ সঞ্চালন, বিতরণ ও উৎপাদন খাতের কোম্পানিগুলোর দপ্তর প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

এমআইএস/কেএসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]