রাষ্ট্রায়ত্ত পাট-বস্ত্রকল আধুনিকায়ন ও চালুর দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৫৭ পিএম, ৩০ জুন ২০২২
জাতীয় প্রেস ক্লাবে আলোচনা সভার আয়োজন করে পাট-সুতা ও বস্ত্রকল শ্রমিক-কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদ

বন্ধ থাকা রাষ্ট্রায়ত্ত পাট-সুতা ও বস্ত্রকল আধুনিকায়ন করে সেগুলো চালু করাসহ ৬ দফা দাবি জানিয়েছেন শ্রমিক নেতারা। একই সঙ্গে ব্যক্তি মালিকানাধীন পাট-সুতা ও বস্ত্র শিল্প শ্রমিকদের জন্য নিম্নতম মজুরি বোর্ডের রোয়েদাদ প্রকাশ করে দ্রুত বাস্তবায়নের আহ্বান জানান তারা।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় পাট-সুতা ও বস্ত্রকল শ্রমিক-কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদের নেতারা এ দাবি জানান। পাট-সুতা ও বস্ত্রকল শ্রমিক-কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদ এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

শ্রমিক নেতাদের দাবিগুলো হলো- পাট-সুতা ও বস্ত্রকলের চাকরিচ্যুতদের মধ্যে কর্মক্ষম শ্রমিকদের কাজে ফিরিয়ে আনতে হবে। সরকারি অধিগ্রহণকৃত, হস্তান্তরিত ও ব্যক্তিমালিকানাধীন পাট-সুতা ও বস্ত্র শিল্প শ্রমিকদের আইনসম্মত সমুদয় বকেয়া-পাওনা পরিশোধ করতে হবে। ব্যক্তি মালিকানাধীন পাট-সুতা ও বস্ত্র শিল্প শ্রমিকদের জন্য নিম্নতম মজুরি বোর্ডের রোয়েদাদ প্রকাশ করে দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে। অতীতের ন্যায় শ্রমিকদের জন্য রেশনিং প্রথা চালু করতে হবে। শ্রমিক-কর্মচারীদের জীবনমানের উন্নতি নিশ্চিত করাসহ রাষ্ট্রায়ত্ত খাত রক্ষার আন্দোলনে ১৯৯৪ সালে নিহত ১৭ জন শ্রমিকের পরিবারকে পুনর্বাসন করতে হবে।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, লোকসানের অজুহাত দেখিয়ে পাট-সুতা ও বস্ত্রকলগুলো বন্ধ করা হয়েছে। এসব কারখানায় লোকসানের কারণ হিসেবে ভুলনীতি, দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনা পরিলক্ষিত হলেও মৌলিক কারণ পুরাতন যন্ত্রের ব্যবহার। আমরা দীর্ঘদিন ধরে এই বিষয়টি বলে আসলেও আমলে নেওয়া হয়নি।
বক্তারা আরও বলেন, কারখানাগুলোকে উন্নত প্রযুক্তির যন্ত্রপাতি দ্বারা আধুনিকায়ন করে চালু করলে অবশ্যই লাভজনক শিল্পে উন্নীত করা সম্ভব। এটা আমাদের অন্যতম প্রধান দাবিও।

সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক শ্রমিকনেতা শহীদুল্লাহ চৌধুরীর সভাপতিত্বে এসময় বক্তব্য রাখেন সংগ্রাম পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক কামরুল আহসান, মছিউদদৌল্লা, জেড. এম. কামরুল আনাম, সিরাজুল ইসলাম, মনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

আরএসএম/কেএসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]