লাইনে না দাঁড়িয়েই টিকিট নেওয়ার চেষ্টা, কমলাপুরে হট্টগোল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৫৮ এএম, ০১ জুলাই ২০২২

আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে আজ (শুক্রবার) সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়েছে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি। টিকিট পেতে বৃহস্পতিবার রাত থেকেই কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের টিকিট কাউন্টারে দাঁড়িয়েছেন অনেকেই। তবে আজ সকালে এসে কেউ কেউ লাইনে না দাঁড়িয়েই টিকিট নেওয়ার চেষ্টা করেন। এতে বাধে হট্টগোল।

শুক্রবার (১ জুলাই) সকালে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়।

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট কাটতে বৃহস্পতিবার রাতে লাইনে দাঁড়ান শতাধিক মানুষ। ঈদযাত্রায় ভোগান্তি এড়াতে আগেভাগেই ট্রেনের টিকিট কাটতে আসেন তারা। তবে কেউ কেউ সকালে এসে বা লাইনের পেছন থেকে এসে আগে টিকিট নিতে গেলে বাধে হট্টগোল।

রুবেল নামের এক ব্যক্তি জাগো নিউজকে বলেন, গতকাল (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যায় এসে লাইনে দাঁড়িয়েছি। তখন আমার সামনে কয়েকজন ছিল। অথচ সকালে টিকিট দেওয়া শুরু হয়ে ২০ মিনিট পার হলেও এখনো আমি পাইনি। লাইনে না দাঁড়িয়েই কাউন্টারে কয়েকজন ভিড় করছেন টিকিট নেওয়ার জন্য। পেছন থেকে এসে তারা ঝামেলা করছেন।

jagonews24

তিনি বলেন, পেছন থেকে কেন সামনে আসলেন এটা জিজ্ঞেস করতেই তার সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। আমরা গতকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও এখনো টিকিট পাইনি। অথচ এরা পেছন থেকে এসে টিকিট নেওয়ার জন্য কাউন্টারে এসে ভিড় করছেন।

জানা যায়, আজ (১ জুলাই) দেওয়া হচ্ছে ৫ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট, ২ জুলাই দেওয়া হবে ৬ জুলাইয়ের টিকিট, ৩ জুলাই দেওয়া হবে ৭ জুলাইয়ের টিকিট, ৪ জুলাই দেওয়া হবে ৮ জুলাইয়ের টিকিট এবং ৫ জুলাই দেওয়া হবে ৯ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট।

এছাড়া ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ৭ জুলাই থেকে। ওইদিন ১১ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি হবে। ৮ জুলাই ১২ জুলাইয়ের টিকিট, ৯ জুলাই দেওয়া হবে ১৩ জুলাইয়ের টিকিট, ১১ জুলাই ১৪ এবং ১৫ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি হবে। তবে ১১ জুলাই সীমিত কয়েকটি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করবে। ১২ জুলাই থেকে সব ট্রেন চলাচল করবে।

আরএসএম/কেএসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]