৭ মাসে রেলক্রসিংয়ে ৩৫ দুর্ঘটনা, নিহত ৭৪

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৪২ পিএম, ৩০ জুলাই ২০২২
ক্রসবার ফেলার পরও ঝুঁকি নিয়ে পার হন অনেকে/ছবি: মাহবুব আলম

২০২০ সাল থেকে ২০২২ সালের ২৮ জুলাই পর্যন্ত সারাদেশের রেলক্রসিংসমূহে ১১৬টি দুর্ঘটনায় ২১৯ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে চলতি বছরই রেলক্রসিংয়ে ৩৫টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এসব দুর্ঘটনায় ৭৪ জন মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন।

শনিবার( ৩০ জুলাই) রোড সেফটি ফাউন্ডেশন এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বছর ভিত্তিক দুর্ঘটনার চিত্র

২০২০ সাল: ৩৮ দুর্ঘটনা নিহত ৬৯ জন।

২০২১ সাল: দুর্ঘটনা ৪৩টি, নিহত ৭৬ জন।

২০২২ সাল (২৮ জুলাই পর্যন্ত): দুর্ঘটনা ৩৫টি, প্রাণহানি ৭৪।

বিবৃতিতে রেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনার কিছু কারণও তুলে ধরেছে রোড সেফটি ফাউন্ডেশন। এর মধ্যে রয়েছে-

১. অননুমোদিত ও অবৈধ বিবেচনা করে বহু রেলক্রসিংয়ে গেটম্যান ও গেটবারের ব্যবস্থা না করা।

২. বৈধ রেলক্রসিংসমূহে গেটম্যানদের দায়িত্বে অবহেলা এবং গেটম্যানের সংকট।

৩. যানবাহনের চালক ও সড়কে চলাচলকারীদের মধ্যে অসচেতনতা ও ধৈর্যের অভাব।

৪. দুর্ঘটনায় দায়ীদের উপযুক্ত শাস্তি না হওয়া এবং রেলপথ ব্যবস্থাপনায় আইনের শাসনের অভাব।

দেশের ২ হাজার ৯৫৯ কিলোমিটার রেলপথে ২ হাজার ৮৫৬টি রেলক্রসিং আছে। এর মধ্যে ১ হাজার ৪৯৫টি বৈধ এবং ১ হাজার ৩৬১টি অবৈধ। ৯৬১টি রেলক্রসিংয়ে কোনো গেটম্যান নেই। দেশে ৮২ শতাংশ রেলক্রসিং অনিরাপদ।

রোড সেফটি ফাউন্ডেশন আরও জানিয়েছে, এই প্রতিবেদনে শুধুমাত্র রেলক্রসিংয়ে সংঘটিত দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি উল্লেখ করা হয়েছে। এর বাইরে রেলট্র্যাকে বহু দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি ঘটেছে, সেগুলো এই হিসাবে যুক্ত করা হয়নি।

এফএইচ/ইএ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।