জবি থেকে চন্দ্রা

গত বছর নভেম্বরে দূরত্ব ৪৯.৬ কিমি, আগস্টে ৫৫.৫ কিমি!

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:১০ পিএম, ১০ আগস্ট ২০২২

সম্প্রতি জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর পর গত ৭ আগস্ট থেকে গণপরিবহনে ভাড়া বাড়িয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। নতুন তালিকা অনুযায়ী পুরান ঢাকার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) থেকে গাজীপুরের চন্দ্রা পর্যন্ত ভাড়া ১৩৯ টাকা। এই রুটের দূরত্ব দেখানো হয়েছে ৫৫ দশমিক ৫ কিলোমিটার।

অথচ গত নভেম্বরে যখন গণপরিবহনে ভাড়া বাড়ানো হয়েছিল, তখন এই রুটের ভাড়ার তালিকায় দূরত্ব লেখা ছিল ৪৯ দশমিক ৬ কিলোমিটার। তখন ভাড়া নির্ধারণ করা হয় ১০৭ টাকা। নয় মাসের ব্যবধানে একই রুটের দূরত্ব কীভাবে ৬ কিলোমিটার বাড়লো তা নিয়ে যাত্রীরা প্রশ্ন তুলেছেন।

একইভাবে আগের তালিকা অনুযায়ী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফুলবাড়িয়ার দূরত্ব ছিল দুই কিলোমিটার। এছাড়া পল্টন ৩ দশমিক ১ কিলোমিটার, মহাখালী ৮ দশমিক ৮ কিলোমিটার, কাকলী ১০ দশমিক ৬ কিলোমিটার, বিমানবন্দর ১৮ দশমিক ১ কিলোমিটার দূরত্ব ছিল। এখন নতুন তালিকা অনুযায়ী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মহাখালীর দূরত্বই ১১ দশমিক ২ কিলোমিটার। বিমানবন্দরের দূরত্ব বলা হয়েছে ২০ দশমিক ৮ কিলোমিটার। দূরত্ব বেশি দেখানোর কারণে এই রুটের ভাড়াও বেড়েছে।

যাত্রীদের অভিযোগ, বাসস্ট্যান্ড একটা থেকে আরেকটার দূরত্ব বাড়িয়ে ভাড়া নির্ধারণ করেছে বিআরটিএ। এর মাধ্যমে বাস মালিকদের অবৈধ সুবিধা দিচ্ছে সংস্থাটি। এতে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন যাত্রীরা। এ নিয়ে প্রায়ই বাসে যাত্রীদের সঙ্গে বাসচালক এবং সহকারীদের বাগবিতণ্ডা হচ্ছে। অবিলম্বে এই রুটের দূরত্ব সঠিকভাবে মূল্যায়ন করে ভাড়া নির্ধারণের দাবি জানিয়েছেন তারা।

বিআরটিএ’র ভাড়া তালিকা বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, গত নভেম্বরে গণপরিবহনে প্রতি কিলোমিটার দূরত্বে ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছিল ২ দশমিক ১৫ টাকা। এখন নতুন তালিকা অনুযায়ী রাজধানীতে প্রতি কিলোমিটার বাসভাড়া ২ দশমিক ৫০ টাকা। এই হিসাবে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চন্দ্রার ওই ৬ কিলোমিটার দূরত্বের বাসভাড়া ১৫ টাকা বেশি নেওয়া হচ্ছে। এই রুটের অন্যান্য দূরত্বেও একইভাবে ভাড়া বেশি নেওয়া হচ্ছে।

jagonews24পূর্বের তালিকা ও বর্তমান তালিকা

বর্তমানে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা থেকে গাজীপুরের চন্দ্রা পর্যন্ত আজমেরী পরিবহন চলাচল করে। এছাড়া এই রুটে গাজীপুরা পর্যন্ত চলাচল করে ভিক্টর পরিবহন। এছাড়া গুলিস্তান, মতিঝিল থেকে আরও বেশ কয়েকটি কোম্পানির বাস চন্দ্রা ও গাজীপুরে যাতায়াত করে।

চন্দ্রা থেকে আজমেরী পরিবহনে করে ব্যবসার কাজে প্রায়ই পুরান ঢাকার বাংলাবাজারে যাতায়াত করেন মোহাম্মদ হোসেন। তিনি বলেন, এবার অস্বাভাবিক হারে ভাড়া বেড়েছে। এই ভাড়া নিয়ে বাসচালকের সহকারী এবং যাত্রীদের মধ্যে প্রায়ই বাগবিতণ্ডা হচ্ছে। সব যাত্রীই বলছেন, দূরত্ব অনুযায়ী বাসভাড়া বেশি নির্ধারণ করা হয়েছে।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চন্দ্রার দূরত্ব আগের তালিকা থেকে ৬ কিলোমিটার বেশি উল্লেখ করা হয়েছে। এই বিষয়টি জানেন কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ হোসেন বলেন, যদি এমনটা হয়, সেটা বিআরটিএ’র অন্যায় হয়েছে। তারা হয়তো বাস মালিকদের সুবিধা দিতে এমনটি করেছে। সঠিকভাবে দূরত্ব মেপে ভাড়া নির্ধারণের দাবি জানান তিনি।

গত ৬ আগস্ট রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে নতুন করে বাসভাড়া মূল্যায়নের তালিকায় স্বাক্ষর করেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের বিআরটিএ অধিশাখার উপসচিব মো. মনিরুল আলম। বুধবার (১০ আগস্ট) বিকেলে এই বিষয়ে জানতে চাইলে মুঠোফোনে তিনি জাগো নিউজকে বলেন, আমরা মন্ত্রণালয় থেকে কিলোমিটার অনুযায়ী ভাড়া নির্ধারণ করে দিয়েছি। এখন কিলোমিটার মেপে ভাড়া তালিকা করার দায়িত্ব বিআরটিএ’র।

এরপর এ বিষয়ে কথা বলতে বিআরটিএ’র চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদারের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হয়। তবে তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এমএমএ/কেএসআর/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।