রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ডব্লিউএফপির হস্তক্ষেপ চান পররাষ্ট্রমন্ত্রী

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৫৩ এএম, ১২ আগস্ট ২০২২
ফাইল ছবি

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের অনুকূল পরিবেশ তৈরিতে জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লিউএফপি) এবং মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে থাকা জাতিসংঘের অন্যান্য সংস্থাকে আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জাতিসংঘের ডব্লিউএফপির কান্ট্রি ডিরেক্টর ডমেনিকো স্কালপেলি পরিচয়পত্র পেশ করার সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

মিয়ানমারে স্ক্যালপেলির কাজ করার আগের অভিজ্ঞতার কথা উল্লেখ করে ড. মোমেন ডব্লিউএফপির নির্বাহী পরিচালক ডেভিড এম বেজলির সঙ্গে তার শেষ বৈঠকের কথা স্মরণ করেন এবং ভাসানচরে স্থানান্তরিত রোহিঙ্গাদের সমর্থনে কাজ শুরু করার জন্য ডব্লিউএফপিকে ধন্যবাদ জানান।

ডব্লিউএফপির বাংলাদেশ প্রতিনিধি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে তার আসন্ন ভাসানচর সফর সম্পর্কে অবহিত করেছেন। একই সঙ্গে সেখানে তাদের কর্মীদের আবাসন, পরিবহন এবং অন্যান্য সুবিধা দেওয়ার জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

বৈঠকে, স্ক্যালপেলি জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের সম্মানের সঙ্গে আশ্রয় দেওয়ার জন্য বাংলাদেশের উদারতার প্রশংসা করেন। এ সময় তিনি চলমান এই মানবিক সঙ্কটে ডব্লিউএফপি-এর অত্যাবশ্যকীয় কাজের জন্য সমর্থন অব্যাহত রাখতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে প্রভাবিত করার জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানান।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিশ্বব্যাপী খাদ্য নিরাপত্তাহীনতা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং এই অঞ্চলের জন্য কৌশলগত রিজার্ভ হিসেবে দক্ষিণ এশিয়ায় একটি ‘আঞ্চলিক খাদ্য ব্যাংক’ স্থাপনের পরামর্শ দেন। একই সঙ্গে তিনি ডব্লিউএফপিকে সরকারের সহযোগিতায় পরিচালিত বিভিন্ন কর্মসূচির অংশ হিসাবে পুষ্টির বিষয়ে তার ফোকাস বাড়ানোর আহ্বান জানান।

এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্কালপেলিকে এখানে তার দায়িত্ব কার্যকরভাবে পালনে সরকারের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেওয়ার আশ্বাস দেন।

জেএস/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।