বঙ্গবন্ধুর দর্শনের বিপরীতে কাজ না করার আহ্বান দুদক চেয়ারম্যানের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:১৪ পিএম, ১৫ আগস্ট ২০২২
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দুদক কার্যালয়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দর্শনের বিপরীতে কাজ না করার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ। সোমবার (১৫ আগস্ট) বঙ্গবন্ধুর ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দুদক কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, আমাদের আত্মসমালোচনা ও আত্মশুদ্ধির পন্থা অবলম্বন করে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। বঙ্গবন্ধুর দৃষ্টান্ত অনুসরণ করে দুর্নীতিমুক্ত সোনার বাংলা গড়ে তুলতে ও জনগণের কাছে দুদকের গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধিতে সততার সঙ্গে কাজ করতে হবে।

দুদক চেয়ারম্যান তার বক্তব্যের শুরুতে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সব শহীদ সদস্যের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, বাঙালি জাতির প্রতি বঙ্গবন্ধুর ছিল অকৃত্তিম ভালোবাসা-বিশ্বাস। কিন্তু বাঙালি সে ভালোবাসা-বিশ্বাসের মর্যাদা রক্ষা করতে পারেনি। ১৯৭৫ এর ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যার পর থেকেই তাকে নানানভাবে খাটো করার চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর তুলনা বঙ্গবন্ধুই। তাঁর মর্যাদাকে কেউ খাটো করতে পারবে না।

দুদক কমিশনার মো. জহুরুল হক তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু সবসময় দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলেছেন। তার আত্মা তখনই শান্তি পাবে, যখন আমরা দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হবো। বঙ্গবন্ধু ’৭৫ সালে দুর্নীতির বিরুদ্ধে যে কথা বলেছেন আমরা আজও একই কথা বলছি।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর আত্মা কীভাবে শান্তি পাবে আমরা জানি না। পৃথিবীর ইতিহাসে এখন পর্যন্ত কোনো রাষ্ট্র প্রধানকে হত্যার পর খুনিদের ইনডেমনিটি দেওয়া হয়নি, কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ক্ষেত্রে এটি হয়েছে। যদিও দেরিতে হলেও আমাদের সুপ্রিম কোর্ট তা বাতিল করে। এদেশে এ জঘন্য হত্যার বিচার হয়েছে ও অপরাধীদের সাজা কার্যকর হয়েছে। দেরিতে হলেও ন্যায়বিচার নিশ্চিত হয়েছে।

দুদক সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু মাত্র ৫৫ বছর বেঁচে ছিলেন, যার মধ্যে তিনি প্রায় ১৩ বছর জেলে ছিলেন। এ অল্প সময়ে তিনি যেভাবে আমাদের স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন ও যে ত্যাগ স্বীকার করেছেন তা অভাবনীয়।

‘আমরা যদি বঙ্গবন্ধুর এ ত্যাগ মনে ধারণ করি, তার দেখনো পথে চলতে পারি ও স্বাধীনতার চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে যার যার পর্যায় থকে দেশের জন্য সঠিকভাবে কাজ করি, তাহলে বঙ্গবন্ধুর লালিত স্বপ্ন ‘স্বপ্নের সোনার বাংলা’ অর্জনে সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারবো।

এসএম/এসএএইচ/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।