১৫ আগস্ট স্মরণে কলকাতায় ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সংঘের সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:১০ পিএম, ১৮ আগস্ট ২০২২

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ সভা করেছে ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সংঘ।

বুধবার (১৮ আগস্ট) সন্ধ্যায় ঐতিহ্যবাহী কলকাতা বেঙ্গল ক্লাব মিলনায়তনে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড ও এর পূর্বাপর নানাবিষয় নিয়ে বক্তব্য দেন দু'দেশের বক্তারা।

মৈত্রী সংঘের কার্যকরি সভাপতি শিশির কুমার বাজোরিয়ার সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। এছাড়া সভায় আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন ও কলকাতায় বাংলাদেশের উপহাইকমিশনার ইলিয়াস আন্দলিব সম্মানিত অতিথি হিসেবে আলোচনায় অংশ নেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক যত বেশি গভীর হবে, এ অঞ্চলের শান্তি ও নিরাপত্তা তত বেশি নিশ্চিত হবে। তাতে দু'দেশই সমানভাবে লাভবান হবে। তিনি দু'দেশের মধ্যেকার এ সম্পর্ক ব্যবসা-বাণিজ্য, যোগাযোগ ও অন্যান্য ক্ষেত্রে এগিয়ে নেওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

আমিনুল ইসলাম আমিন বলেন, আমাদের একজন শেখ হাসিনা ছিলেন বলেই বঙ্গবন্ধু হত্যার পরবর্তী ঘোর অমানিশা কাটিয়ে তার কালজয়ী নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা সম্ভব হয়েছে। একই সঙ্গে তার অনন্য গতিশীল নেতৃত্বের কারণে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের বুকে আত্মমর্যাদা নিয়ে অস্তিত্ব জানান দিচ্ছে।

আন্তর্জাতিক রাজনীতিতেও বঙ্গবন্ধুকন্যার অসামান্য দক্ষতার কারণে ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক আজ নতুন এক মাত্রায় উপনীত উল্লেখ করেন আমিন।

উপহাইকমিশনার আন্দালিব আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান ও তার দায়িত্বপালনে সবার সহযোগিতা কামনা করেন। সভাপতি শিশির বাজোরিয়া বলেন, বঙ্গবন্ধুকে কলকাতার মানুষ পরম মমতায় স্মরণ করেন। বাংলাদেশের অতিথিদের এ সফরের জন্য ধন্যবাদ জানান তিনি।

সভায় স্থানীয় সুধীজন এবং কলকাতায় বাংলাদেশ উপহাইকমিশনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আইএইচআর/এমএএইচ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।