ধর্মীয় সম্প্রীতি বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্যের অবিচ্ছেদ্য অংশ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৯ পিএম, ১৮ আগস্ট ২০২২
রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের প্রতিনিধি দল/ছবি: পিআইডি

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। তিনি বলেছেন, ‘ধর্মীয় সম্প্রীতি বাংলাদেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের অবিচ্ছেদ্য অংশ।’

তিনি বলেন, ‘সব ধর্মের মূল বাণী হচ্ছে মানুষের কল্যাণ। আদিকাল থেকেই এ দেশে সব ধর্মীয় উৎসব সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণে উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হয়ে আসছে। ধর্মীয় বা জাতিগত ভেদাভেদের অজুহাত তুলে কেউ যাতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এ পরিবেশ ক্ষুণ্ন করতে না পারে, সে ব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।’

জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের একটি প্রতিনিধি দল। এসময় রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, করোনা মহামারি ও বিশ্বব্যাপী বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থার প্রেক্ষাপটে সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রা সহজ করতে সরকার বিভিন্ন ধরনের প্রণোদনা দিচ্ছে। পাশাপাশি বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে।

সমাজের দরিদ্র জনগোষ্ঠী যাতে জন্মাষ্টমীর উৎসবে শামিল হতে পারে, সেজন্য রাষ্ট্রপতি সবার প্রতি সহযোগিতা ও সহমর্মিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান।

সাক্ষাৎকালে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ও ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান, সংসদ সদস্য ড. বীরেন শিকদার, মনোরঞ্জন শীল গোপাল, পংকজ দেবনাথ, রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন ও সচিব (সংযুক্ত) মো. ওয়াহিদুল ইসলাম খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এসইউজে/এএএইচ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।