জাহাজ থেকে স্ক্র্যাপ বিক্রির সময় মাস্টারসহ গ্রেফতার ৯

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৫:০৫ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

জাহাজের মাস্টার, ড্রাইভার, গ্রিজার, সুকানি মিলে বিক্রি করে দিচ্ছিল আমদানি করা স্ক্র্যাপ। চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর ডায়মন্ড ঘাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে স্ক্র্যাপ বিক্রির সময় হাতেনাতে চোর চক্রের ৯ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে নৌ-পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সদরঘাট থানা নৌ-পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবিএম মিজানুর রহমান বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

jagonews24

তিনি বলেন, বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাত ১টার দিকে কর্ণফুলী নদীর ডায়মন্ড ঘাট এলাকা থেকে চোর চক্রের ৯ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আবুল খায়ের গ্রুপের মালিকানাধীন এমভি টিটু-৭ হতে স্ক্র্যাপ চুরি করছিল তারা। এসময় তাদের কাছ থেকে ১২৫০ কেজি চোরাই স্ক্র্যাপ, ওয়ার সিল কাটার যন্ত্রসহ নানান সামগ্রী জব্দ করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন— জাহাজের মাস্টার পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার চরখালী গ্রামের মনছুর আলী হাওলাদারের ছেলে মো. জসিম উদ্দিন (৪০), সুকানি একই গ্রামের মো. ইউনুস খলিফার ছেলে মো. রাজিব খলিফা (২৫), ড্রাইভার নরসিংদীর সীমান্তবর্তী এলাকায় বগারগুদ গ্রামের মৃত শাহাজ উদ্দিনের ছেলে মো. মোক্তার হোসেন (৩৭), সুকানি মির্জাগঞ্জ উপজেলার চতরা গ্রামের মো. নাজমুল হাসান (২৪), গ্রিজার নোয়াখালীর হাতিয়া থানার পূর্ব সোনাদিয়া গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে মো. করিম উদ্দিন (২২), লস্কর পিরোজপুরের ইন্দরকানী থানার পশ্চিম বালিপাড়া গ্রামের মৃত ছালাম তালুকদারের ছেলে আব্দুর রহিম (৩০), লস্কর পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার শৌলা গ্রামের মো. জাকির হোসেনের ছেলে মো. জাহিদ (২১), লক্ষীপুরের রামগতি উপজেলার চরাবজল গ্রামের মৃত রেদোন আলীর ছেলে মো. কালাম (৩৮), নোয়াখালীর চরজব্বার থানার চর রশিদ গ্রামের মো. জামালের ছেলে আব্দুল (২৪)। এ ঘটনায় জড়িত তিনজন পালিয়ে যায়। তারা হলেন— চট্টগ্রামের কর্ণফুলী থানার চরপাথরঘাটা ইউনিয়নের ডায়মন্ড বাড়ির মৃত মফজলের ছেলে মো. ইদ্রিস, রফিক মাঝির ছেলে সাজ্জাদ (২৩), একই ইউনিয়নের কলাতলী গ্রামের আবুল হোসেন ওরফে বিচ্ছুর ছেলে মো. আবু তাহের ওরফে আকাশ (২৪)।

jagonews24

এবিএম মিজানুর রহমান আরও জানান, এমভি টিটু-৭ নামের জাহাজ থেকে জাহাজের মাস্টার, ড্রাইভার, গ্রিজার, সুকানি মিলে আমদানি করা স্ক্র্যাপ চুরি করে বিক্রি করে দিচ্ছিল। রাত ১টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাদের হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতার ৯জন ও পলাতক তিনজন মিলে ১২ জনের বিরুদ্ধে কর্ণফুলী থানায় মামলা দায়ের করা হচ্ছে। মামলাটি নৌ-পুলিশের সদরঘাট থানার পক্ষ থেকে তদন্ত করা হবে।

ইকবাল হোসেন/এমএএইচ/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।