‘ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গিতে মাদকমুক্তদের অনুপ্রাণিত করতে হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৪৮ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

সারাবিশ্বে সেপ্টেম্বর রিকভারি মাস হিসেবে উদযাপিত হয়। এ মাস উদযাপনের অন্যতম লক্ষ্য রিকভারি কমিউনিটিকে অনুপ্রাণিত করা। যাতে তারা রিকভারি জীবনের এ চলমান প্রক্রিয়ায় নিজেদের একা না ভাবে এবং তারা তাদের রিকভারি হওয়ার বিষয়ে লজ্জা বা সংকোচ না করে। সমাজের নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন ও বৈষম্য কমানোর মাধ্যমে রিকভারিদের অনুপ্রাণিত করাও এর অন্যতম লক্ষ্য।

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) আন্তর্জাতিক রিকভারি মাস উদযাপন উপলক্ষে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের ধানমন্ডি প্রধান কার্যালয়ের মিলনায়তনে মাদক থেকে সুস্থতাপ্রাপ্ত রিকভারি পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের নির্বাহী পরিচালক মো. সাজেদুল কাইয়ুম দুলালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আবদুল ওয়াহাব ভূঞা। বিশেষ অতিথি ছিলেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিচালক (চিকিৎসা ও পুনর্বাসন) মো. মাসুদ হোসেন, জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের পরিচালক পরিচালক অধ্যাপক ডা. বিধান রঞ্জন রায় পোদ্দার ও মালয়েশিয়ার সোলেস মাদকাসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা প্রেম কুমার।

এছাড়ও আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রের আবাসিক মনোচিকিৎসক ডা. রাহানুল ইসলাম।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবদুল ওয়াহাব বলেন, মাদক নির্ভরশীলতার কারণে শারীরিক, মানসিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিক সমস্যা সৃষ্টি হয়। মাদক নির্ভরশীলতা চিকিৎসায় স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনে নীতিনির্ধারকসহ বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের সম্পৃক্ত করা উচিত।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন স্বাস্থ্য ও ওয়াশ সেক্টরের পরিচালক ইকবাল মাসুদ।

অনুষ্ঠানে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের নারী মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও পুনর্বাসন কেন্দ্র, আহ্ছানিয়া মিশন মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও পুনর্বাসন কেন্দ্র গাজীপুর ও আহ্ছানিয়া হেনা আহমেদ মনোযত্ন কেন্দ্র থেকে সুস্থ্য হওয়া ব্যক্তি, পরিবারের সদস্য ও কর্মীরা অংশ নেন।

টিটি/এমআইএইচএস/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।