লঞ্চে যাত্রীর ৫ লাখ টাকার মালামাল চুরি, গ্রেফতার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩৫ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
চুরির অভিযোগে সদরঘাট থেকে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়

গ্রামের বাড়ি যাওয়ার জন্য পরিবার নিয়ে সুরভী-৭ লঞ্চে ওঠেন রেজাউল করিম। লঞ্চের তিন তলার ৩০৫ নম্বর কেবিনটি নেন। পরে খাওয়ার জন্য পরিবারের সদস্যদের নিয়ে লঞ্চের ক্যান্টিনে যান তিনি। এই সুযোগে কেবিনের তালা খুলে টাকা, স্বর্ণালংকারসহ অন্যান্য মালামাল নিয়ে সটকে পড়ে চোর চক্র। রেজাউলের আনুমানিক পাঁচ লাখ টাকার মালামাল চুরি হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

এমন অভিযোগে রাজধানীর সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল এলাকা থেকে দুজনকে গ্রেফতার করে নৌ-পুলিশ। এদের মধ্যে লঞ্চের কেবিনে চুরি, অজ্ঞান পার্টি ও ছিনতাই চক্রের মূলহোতাও রয়েছেন বলে জানায় পুলিশ।

গ্রেফতাররা হলেন মো. খাইরুল ইসলাম বিশ্বাস (৩০) ও মো. স্বপন হাওলাদার (৪২)। তাদের কাছ থেকে কেবিন খোলার একাধিক নকল চাবি, চুরির মালামাল বহনের একটি ব্যাগ, কয়েকটি জুসের বোতল, দুটি মোবাইল, চুরি করা নগদ আট হাজার ৩০০ টাকা জব্দ করা হয়।

Theft-2

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) নৌ-পুলিশ সদরদপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন নৌ-পুলিশের ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস।

তিনি বলেন, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল এলাকায় চুরি করে যাত্রীদের নিঃস্ব করে আসছিল। এ চক্রকে ধরার জন্য তৎপর হয় নৌ-পুলিশ। সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখা তাদের শনাক্ত করা হয়। এরপর তাদের গ্রেফতারে সদরঘাট টার্মিনালের বিভিন্ন পয়েন্টে সাদা পোশাকে পুলিশ মোতায়েনসহ গুপ্তচর নিয়োগ এবং প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার চক্রের দুজনকে গ্রেফতার করে নৌ-পুলিশ।

Theft-2

আসামিরা জিজ্ঞাসাবাদে জানান, তারা লঞ্চে চুরি ও অজ্ঞান পার্টিসহ ছিনতাই চক্রের সক্রিয় সদস্য। তাদের আরও একাধিক গ্রুপ রয়েছে।

পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস বলেন, চক্রটি চুরি করতে গিয়ে অনেক সময় পানি, জুস, চা, বিস্কুটসহ অন্যান্য খাবারের সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ মিশিয়ে যাত্রীদের অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুটে নিতো। এছাড়া ক্ষেত্রবিশেষ তারা যাত্রীদের মালামাল ছিনতাই করে পালিয়ে যেত।

গ্রেফতার খাইরুল ইসলামের বিরুদ্ধে আটটি মামলা রয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

টিটি/জেডএইচ/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।