অটোরিকশার জন্য স্কুলছাত্রকে হত্যা, গ্রেফতার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০৪ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

নীলফামারীর ডোমারে স্কুলছাত্র আরিফ হোসেন (১৪) হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। সংস্থাটি জানায়, গ্রেফতাররা দুই সহযোগীসহ আরিফকে হত্যা করে তার বাবার অটোরিকশা নিয়ে পালিয়ে যায়।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ভোরে ঢাকার আশুলিয়া থানা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এদিন সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় সিআইডি।

গ্রেফতাররা হলেন- মো. কহিনুর ইসলাম ওরফে রুবেল (৪০) ও মো. আলমগীর হোসেন ওরফে আলম (৪০)।

সিআইডি জানায়, গত ১৯ আগস্ট নীলফামারীর ডোমারে বাবার অটোরিকশাসহ নিখোঁজ হয় অষ্টম শ্রেণির ছাত্র আরিফ হোসেন। পরে ২৬ আগস্ট তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় সিআইডির একটি দল মঙ্গলবার অভিযান চালিয়ে রুবেল ও আলমকে গ্রেফতার করে।

সংস্থাটি জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতাররা জানান, দুই সহযোগীসহ রুবেল ও আলম যাত্রীবেশে আরিফের অটোরিকশায় উঠেন। তারা বিভিন্ন স্থানে ঘোরাফেরা করে নির্জন স্থানে যাওয়ার পর প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেওয়ার কথা বলে আরিফকে অটোরিকশা থামাতে বলেন। ওই সময় রুবেল ও তার সহযোগীরা আরিফকে অটো থেকে টেনেহিঁচড়ে নামিয়ে অটো নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় আরিফ বাধা দিলে তারা মারধর করতে থাকে। একপর্যায়ে আরিফ অচেতন হয়ে পড়লে তাকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে মরদেহ শুকনা গাছ দিয়ে ঢেকে তারা অটো নিয়ে পালিয়ে যায়।

সিআইডি আরও জানায়, চুরি করা রিকশাটি রুবেল তার এক আত্মীয়ের কাছে ৪৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে। গ্রেফতার রুবেল চুরি মামলায় দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। আলমের বিরুদ্ধে নীলফামারী জেলার বিভিন্ন থানায় দস্যুতা ও চুরির ছয়টি মামলা রয়েছে।

আরএসএম/আরএডি/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।