দুদকের এফআইআরে মৃতব্যক্তির নামও আছে: এনআই খান

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩০ পিএম, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড (আইএলএফএসএল) নিয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা এফআইআর (ফার্স্ট ইনফরমেশন রিপোর্ট) প্রশ্নবিদ্ধ বলে মন্তব্য করেছেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান এবং সাবেক সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান (এনআই খান)।

তিনি বলেছেন, আইএলএফএসএল নিয়ে দুদক যে এফআইআর করেছে, সেখানে মৃতব্যক্তির নাম আছে। আবার পরিচালনা পর্ষদে ছিলেন এমন ব্যক্তির নাম মামলায় রাখা হয়নি।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) আইএলএফএসএলের ২৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন এন আই খান।

পিপলস লিজিংয়ের পাঁচ আমানতকারীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ৫ জানুয়ারি পিকে হালদারের মা লীলাবতী হালদারসহ ২৫ জনের বিদেশ যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেন হাইকোর্ট। ওই ২৪ জনের মধ্যে এনআই খান ছিলেন। পরবর্তীতে এনআই খানকে বিদেশ যাওয়ার ওপর হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ স্থগিত করে আপিল বিভাগের চেম্বার কোর্ট।

এ বিষয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে এনআই খান বলেন, হাইকোর্টের আদেশে আমাকে আইএলএফএসএলের চেয়ারম্যান করা হয়। এ বিষয়ে আমি কিছু জানতাম না। আমার বিদেশ যাত্রার নিষেধাজ্ঞা চেয়ে দুদক যে মামলা করে তা উদ্দেশ্য প্রণোদিত। দু’টি টেলিভিশনের টকশোতে দুদক আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খানের সঙ্গে আমার মতোবিরোধ হয়। সে কারণে ব্যক্তি আক্রশের কারণে এ মামলা করা হতে পারে।

তিনি বলেন, আপনারা দেখেছেন দুদক যে এফআইআর করেছে সেখানে মৃতব্যক্তির নাম আছে। আবার এমন ব্যক্তি আছে বোর্ডে তার নাম আছে, কিন্তু এফআইআরে তার নাম নেই।

এফআইআর যে মৃতব্যক্তির নাম আছে তিনি কে? সাংবাদিকদরা এমন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, আপনারা খুঁজে বের করেন। আমি না বলবো না। তবে, আমি বলছি— এফআইআরে মৃতব্যক্তির নাম আছে।

তিনি আরও বলেন, ২০-৩০টা মামলা করে এর মানে কনফিডেন্স নেই ধরতে পারবো কি পারবো না। একটা করতে হবে একদম টাইট দিয়ে, দুইটা করতে হবে টাইট দিয়ে, তিনটা করতে হবে টাইট দিয়ে। ৩০টা মামলা করা লুজ।

আপনি বলছেন, হাইকোর্ট আপনাকে দায়িত্ব দিয়েছে, আপনি কিছুই জানতেন না, আবার হাইকোর্ট থেকেই আপনার বিদেশ যাত্রার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল। তহলে এটা কি স্ববিরোধ হয়ে গেলো কি না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে উত্তরে তিনি বলেন, দু’টি দুই কোর্ট। আবার দুদক যে দরখাস্ত করেছে সেখানে নাম আর বাপের নাম লিখিছে। এখানকার (ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইনান্সিয়াল সার্ভিসেস) চেয়ারম্যান উল্লেখ করেনি।

এমএএস/এমএএইচ/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।