আইইবির সভায় শ্রম প্রতিমন্ত্রী

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ শোধ করতে চাই

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০৭ পিএম, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২
আইইবির আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন শ্রম প্রতিমন্ত্রী

শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান বলেন, শেখ হাসিনা হচ্ছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিচ্ছবি। তার রাজনৈতিক দুরদর্শিতা ও চিন্তা-চেতনা অত্যাধুনিক। আমরা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ শোধ করতে চাই।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন উপলক্ষে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের (আইইবি) কাউন্সিল হলে ‘উন্নত বাংলাদেশের রূপকার, সারাবিশ্বের বিস্ময় বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা’ শীর্ষক আলাচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী পড়লেই আমরা বুঝতে পারি, তিনিই বাঙ্গালি জাতিকে স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন। বঙ্গবন্ধু অর্থনৈতিক মুক্তি চেয়েছিলেন। তারই আদর্শ হৃদয়ে ধারণ করে শেখ হাসিনা বাঙালি জাতিকে অর্থনৈতিক মুক্তি দেওয়ার কাজ করে যাচ্ছেন।

‘বঙ্গবন্ধু অনেক ভাগ্যবান ছিলেন, কারণ তার চার সহচর ছিলেন। বাঙালির স্বাধীনতায় ওই চার নেতার অবদান অবিস্মরণীয়। তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা স্বরূপ আমরা তাদের জাতীয় নেতা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছি।’

তিনি বলেন, আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসের পাশাপাশি জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য আমৃত্যু পর্যন্ত কাজ করে যাবো। আদর্শের কোনো মৃত্যু হয় ন। ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও, তার আদর্শকে শেষ করতে পারেনি।

‘বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের ফাঁসি কার্যকরের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ পরিশোধের চেষ্টাকে সবাই সাধুবাদ জানিয়েছেন। বাকি ঘাতকদের ফাঁসি রায়ও কার্যকর হবে বলে আশাবাদী দেশের মানুষ ‘

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ১৯৭৩ সাল থেকেই আমি আওয়ামী লীগ করি। আমি উঠে এসেছি শ্রমিক নেতৃত্ব থেকে। প্রথম থেকেই শ্রমিকরা যাতে চাঁদাবাজি করতে না পারেন, সে বিষয়ে খেয়াল রাখতাম। শ্রমিকদের তদারকি করতে বিশেষ বিভাগীয় প্রতিনিধিরা কাজ করতেন।

এসময় মন্নুজান সুফিয়ান দেশ গড়ার কারিগর প্রকৌশলীরা শেখ হাসিনার পাশে থেকে ২০৪১ সালের আগেই উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ গঠনে অবদান রাখবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আইইবি ঢাকা কেন্দ্রের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মোল্লা মোহাম্মদ আবুল হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন- ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) উপাচার্য অধ্যাপক ড. প্রকৌশলী মো. হাবিবুর রহমান, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক ডা, কামরুল হাসান খান, আইইবির ভাইস-প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী খন্দকার মঞ্জুর মোর্শেদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী প্রতীক কুমার ঘোষ।

আইইবির সম্পাদক প্রকৌশলী কাজী খায়রুল বাশারের সঞ্চালনায় এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন-আইইবি কেন্দ্রীয় কমিটির সহকারী সাধারণ সম্পাদক শেখ তাজুল ইসলাম তুহিন, হাবিব আহমদ হালিম (মুরাদ), দেবু কুমার মণ্ডল, আতাউর রহমান প্রকৌশলী মো. মুসলিম উদ্দিন প্রমুখ।

আইএইচআর/এসএএইচ/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।