‘যানজট ছাড়া কোনোদিনই সাতরাস্তা পার হতে পারিনি’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:০৭ পিএম, ০৬ অক্টোবর ২০২২
রাজধানীর সাতরাস্তা ও মগবাজার-মৌচাক উড়াল সড়কে তীব্র যানজট

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) দুপুর ২টা। বনানী চেয়ারম্যান বাড়ি থেকে তেজগাঁও বিজি প্রেস পর্যন্ত দেড় কিলোমিটারের বেশি দূরত্ব বাসে করে পার হতে সময় লাগলো ১০ মিনিট। অথচ বিজি প্রেস থেকে তেজগাঁও সাতরাস্তা মোড় পার হতে সময় লাগলো ১৫ মিনিট।

ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা খুবই দুর্বল থাকায় প্রতিদিনই এ মোড়ে দীর্ঘক্ষণ যানজটে আটকে থাকতে হয়। আজ যানজটে আটকে থাকা অবস্থায় জাগো নিউজকে এসব কথা বলেন মগবাজারের যাত্রী মতিউর রহমান।

তিনি বলেন, দুপুর পৌনে ১টায় উত্তরার ৪ নম্বর সড়ক এলাকা থেকে মগবাজারের বাসে উঠি। যাত্রাপথে বিমানবন্দর রেলস্টেশনের সামনে প্রায় ২০ মিনিট যানজটে আটকে থাকতে হয়েছে।

বনানী-কাকলী অংশ পার হতে সময় লেগেছে আরও ২০ মিনিট। এরপর সাতরাস্তা মোড়ে গিয়ে আটকে গেলাম। অথচ এ তিন জায়গায় যানচলাচল স্বাভাবিক থাকলে যানজটে আটকে থাকা লাগতো না।

গুলশান-১ থেকে সিএনজিতে কারওয়ান বাজারে যাচ্ছিলেন মুদি দোকানি নিজাম উদ্দিন। তেজগাঁওয়ে যানজটে আটকে থাকা অবস্থায় তিনি বলেন, যানজট ছাড়া কোনোদিনই সাতরাস্তা পার হতে পারিনি। যখনই এ সড়ক দিয়ে যাই তখনই যানজট বা সিগন্যালে থামতে হয়। এতে কর্মজীবী মানুষের সময় নষ্ট হয়। দেশের ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় আরও গতি আনা দরকার।

‘যানজট ছাড়া কোনোদিনই সাত রাস্তা পার হতে পারিনি’

সাতরাস্তা মোড়ে ট্রাফিকের দায়িত্ব পালন করছিলেন পুলিশের দুজন কনস্টেবল। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ সদস্য বলেন, সাতরাস্তা মোড় সাতটি সড়কের সংযোগস্থল। ফলে দিনভরই এখানে গাড়ির চাপ অনেক বেশি থাকে। এর মধ্যে রিকশার কারণে যানবাহনের গতি আরও কমে যায়।

দুপুর ১টার দিকে তেজগাঁও, মহাখালী, মগবাজার, মিন্টো রোড এলাকায় ঝুম বৃষ্টি হয়। এতে মগবাজার-মৌচাক উড়ালসড়কে পানি জমে যায়। তখন সাতরাস্তা অংশ থেকে উড়ালসড়কে উঠতে গাড়ির গতি কমে যায়। আবার উড়াল সড়ক থেকে মিন্টো রোডের দিকে যেতেই যানজটে পড়তে হয়।

মিন্টো রোডে ট্রাফিকের দায়িত্ব পালনকারী কনস্টেবল ইকবাল হোসেন বলেন, উড়ালসড়ক থেকে গাড়িগুলো নেমেই ডানে-বামের সংযোগ সড়কে যেতে চায়। আবার ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে দিয়ে অভিভাবকদের অনেক ব্যক্তিগত গাড়ি আসা-যাওয়া করে। এতে এ এলাকায় যানজট হয়। তবে ট্রাফিক পুলিশ যানজট নিরসনে সবসময়ই সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যায়।

এমএমএ/এসএএইচ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।