গ্রিল কেটে অর্ধশতাধিক বাসায় চুরি

চুরির টাকা জুয়া খেলার পাশাপাশি দান করতেন মনির

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৫৩ পিএম, ০৭ অক্টোবর ২০২২

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অর্ধশতাধিক বাসায় গ্রিল কেটে চুরির ঘটনায় জড়িত গ্রেফতার মনির হোসেন অনাথ আশ্রমের টাকা চুরি করে দান করার পাশাপাশি জুয়া খেলে ও নেশা করে খরচ করতেন বলে জানিয়েছেন ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) এইচ এম আজিমুল হক।

শুক্রবার (৭ অক্টোবর) নিজ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান এইচ এম আজিমুল হক।

dmp3

তিনি বলেন, রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানার মোহাম্মদিয়া হাউজিং লিমিটেডের ৩ নম্বর রোডে রাইটস আ্যন্ড সাইট ফর চিল্ড্রেন (আরএসসি) নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি মূলত অনাথ ও পথশিশুদের আশ্রয় এবং পড়াশোনা করতে সহযোগিতায় কাজ করে থাকে। গত ১ অক্টোবর মধ্যরাতে প্রতিষ্ঠানের অফিস রুমের গ্রিল কেটে আলমারি থেকে সাড়ে ১২ লাখ চুরি করে এক চোর। এ ঘটনায় পরদিন প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার আব্দুন নাসের (রোমেল) বাদী হয়ে মোহাম্মদপুর থানায় একটি চুরির মামলা করেন।

পরে তদন্তে নেমে বিভিন্ন তথ্য উপাত্তের ভিত্তিতে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার তারানাগর ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে মনির হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে সাত লাখ ৮৭ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। মনির একজন পেশাদার চোর। তার বাড়ি কেরানীগঞ্জ উপজেলার তারানগর ইউনিয়নের পশ্চিম বাংলানগর গ্রামে।

আজিমুল হক আরও বলেন, চুরি করে নেওয়া টাকা দিয়ে মনির জুয়া খেলা এবং নেশার পেছনে খরচ করেন। এছাড়া স্থানীয় দরিদ্র মানুষের মধ্যে দান করেন।

dmp3

মনির পেশাদার চোর উল্লেখ করে তিনি বলেন, মনির দেখতে ভোলাবালা ভবঘুরে টাইপের। তবে তার এ চেহাররা আড়ালে সে পেশাদার চোর। সাম্প্রতিক সময়ে ঘটে যাওয়া ৪ থেকে ৫টি চুরির সঙ্গে জড়িত থাকায় তার নাম পাওয়া গেছে। এছাড়া অন্তত গ্রিল কেটে অর্ধশতাধিক চুরির ঘটনা ঘটিয়েছে মনির।

মোহাম্মদপুর থানায় দায়ের হওয়া মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে রিমান্ডে আনা হবে। এরপর খোয়া যাওয়া বাকি পাঁচ লাখ টাকার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

টিটি/এমএএইচ/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।