কোস্টাল শিপিং চুক্তি: শিগগির শ্রীলঙ্কাকে মতামত জানাবে বাংলাদেশ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৫ পিএম, ২৩ নভেম্বর ২০২২

কোস্টাল শিপিং অ্যাগ্রিমেন্ট (চুক্তি) বিষয়ে শিগগির শ্রীলঙ্কাকে মতামত জানাবে বাংলাদেশ। বুধবার (২৩ নভেম্বর) সচিবালয়ে শ্রীলঙ্কার প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এ কথা জানানো হয়।

সচিবালয়ে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে প্রতিনিধি দলে নেতৃত্ব দেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। বৈঠকে শ্রীলঙ্কার প্রতিনিধিদের পক্ষে নেতৃত্ব দেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম ইউ এম আলী সাবরি।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৈঠকে বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কার মধ্যে কোস্টাল শিপিং অ্যাগ্রিমেন্ট বিষয়ে আলোচনা হয়। একই সঙ্গে শ্রীলঙ্কান শিপিং করপোরেশন ও বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের মধ্যে ফিডার সার্ভিসের জন্য স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) বিষয়ে আলোচনা হয়।

বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কার মধ্যে কোস্টাল শিপিং অ্যাগ্রিমেন্ট বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কার মধ্যে কোস্টাল শিপিং অ্যাগ্রিমেন্ট বিষয়ে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে আলোচনা চলছে। বাংলাদেশ পক্ষ সব দপ্তর/সংস্থা, সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে সভা করে এবং তাদের নিকট থেকে প্রাপ্ত মতামত এবং ইনপুট পর্যালোচনা করেছে। এসব বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে সংশ্লিষ্ট আইন এবং বিধি-বিধান পর্যালোচনা শেষে শ্রীলঙ্কাকে শিগগির জানানো হবে।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় আরও জানায়, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে নৌযোগাযোগ বৃদ্ধি ও মেরিটাইম সহযোগিতাকে সম্প্রসারিত করে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সমৃদ্ধশালী হওয়ার ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে। এ উপলব্ধি থেকে উভয় দেশ পারস্পরিক সহযোগিতার ক্ষেত্রগুলো নির্ণয় করে একযোগে কাজ করে চলেছে। এ সম্ভাবনা এবং সহযোগিতার ক্ষেত্রগুলো নির্ধারণের জন্য উভয় দেশ প্রতিবছর সচিব পর্যায়ের একটি সভা আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়। বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কার মধ্যে সচিব পর্যায়ের প্রথম সভা ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়েছিল। দ্বিতীয় সভা কলম্বোয় অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ এর কারণে তা বিলম্বিত হয়েছে। দ্বিতীয় সভা শিগগির কলম্বোয় অনুষ্ঠিত হবে।

বৈঠকে জানানো হয় যে, শ্রীলঙ্কান শিপিং করপোরেশন ও বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের মধ্যে ফিডার সার্ভিসের জন্য স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) বিষয়ে শ্রীলঙ্কান কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ পক্ষের মতামতের বিষয়ে একটি রিভাইজড টেক্সট পাঠিয়েছে। ওই এসওপির বিষয়ে মতামত দিতে নৌপরিবহন অধিদপ্তর, বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশন এবং চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানিয়েছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। সংশ্লিষ্ট দপ্তর/সংস্থা থেকে মতামত পাওয়ার পর বাংলাদেশ পক্ষের টেক্সট চূড়ান্ত করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে শ্রীলঙ্কান কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

বৈঠকে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল এবং শ্রীলঙ্কার হাইকমিশনার প্রফেসর সুদর্শন সেনেভিরত্নে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে শ্রীলঙ্কার সফররত পররাষ্ট্রমন্ত্রী নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে তার অফিস কক্ষে সাক্ষাৎ করেন।

আরএমএম/কেএসআর/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।