নারী-পুরুষে পার্থক্য নেই, দায়িত্ব সবার সমান: বাণিজ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:১৭ পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০২২
ইন্টারন্যাশনাল উইম্যান এন্টারপ্রেনার্স সামিটে বক্তব্য দেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি

দেশের উন্নয়নে নারীরা এখন পুরুষের সমান অবদান রাখছেন বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

তিনি বলেন, সারা বিশ্বেই নারীরা পুরুষের সমান তালে কাজ করে যাচ্ছেন। নারী ও পুরুষের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই, দায়িত্ব সবার সমান। নারীকেও নিজ প্রচেষ্টায় ঘর থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) ঢাকায় রেডিসন ব্লু হোটেলের মল্লিকা হলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। ইন্টারন্যাশনাল উইম্যান এন্টারপ্রেনার্স সামিট-২০২২ আয়োজন করেছে বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট ডেভেলপমেন্ট অথরিটি (বিডা)। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিনে উইম্যান ইন বিগ ইন্ডাস্ট্রিজ প্রোভাইডিং ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ ফর স্মলার ইন্ডাস্ট্রিজ শীর্ষক সপ্তম সেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

টিপু মুনশি বলেন, পিছিয়ে পড়া নারীদের এগিয়ে নিতে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। আমাদের দেশের নারীরা এরইমধ্যে অনেক এগিয়ে গেছেন। শিক্ষাক্ষেত্রে উপস্থিতি প্রায় সমান সমান, রেজাল্টে অনেক ক্ষেত্রে নারীরা এগিয়ে থাকেন। কর্মক্ষেত্রে নারীরা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছেন। সব কর্মক্ষেত্রেই এখন নারীদের সরব উপস্থিতি দেখা যাচ্ছে। কোনো কর্মক্ষেত্রেই নারীরা এখন আর পিছিয়ে নেই, দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন। নারীরা পুরুষের মতো সমান কাজ করতে পারেন তা এখন প্রমাণিত।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে এবং নেতৃত্বে আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। আজ তারই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক মুক্তির পথে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদের দেশের জনসংখ্যার আর্ধেক নারী। এ বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীকে সঙ্গে না নিয়ে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়।

তিনি বলেন, নারী সমাজ এগিয়ে এসেছে বলেই আমরা আজ বর্তমান অবস্থানে। আমাদের দায়িত্ব নারী সমাজকে সহযোগিতা করা এবং একসঙ্গে কাজ করে এগিয়ে যেতে হবে। এজন্য আমাদের কিছু মানসিকতার পরিবর্তন দরকার। নারীদের কাজের মূল্যায়ন করতে হবে। সুযোগ দিতে হবে নারীদের এগিয়ে যাবার। নারী ও পুরুষ সম্মিলিতভাবে দেশের কাজ করে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করতে হবে।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন হার স্টোরি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা জেরিন মাহমুদ হোসেইন। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বার্জার পেইন্টসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুপালী হক চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে অনলাইনে যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতি নাওকি। এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্কয়ার গ্রুপের ডেপুটি ডাইরেক্টর অনিকা চৌধুরী, টাইগার নিউ এনার্জির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিকোলে জিংওয়েন মাও, সেভেন রিং সিমেন্টের পরিচালক অরুশা খান, ওয়ান্ডার উইম্যানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিরা মেহরিন প্রমুখ।

আইএইচআর/কেএসআর/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।